আনলিমিটেড খরচ! ১১ মাসে শপিং করেই ১৮ কো’টি উড়িয়ে দিলেন তরুণী, কিন্তু এরপর?

আমরা এরকম হামেশাই মজা করে বলে থাকি যদি হটাৎ করে বেশ কয়েক কোটি টাকা পেয়ে যেতাম। তাহলে কি ভালোই না হতো। তবে এমনটা যে সত্যি হওয়ার নয় সেটা সকলেই জানি। কিন্তু যদি সত্যি এমন পাওয়া যেত কোটি কোটি টাকা কেমন হতো তার প্রমাণ মিলল অস্ট্রেলিয়ায়। অস্ট্রেলিয়ার এক তরুণী নাম ক্রিস্টিন জিয়াক্সিন লি, তার ব্যাংক একাউন্টে হটাৎ করেই চলে আসে ১৮ কোটি টাকা। আর সেই মেয়ে ওই টাকা কয়েকদিনের মধ্যেই উড়িয়ে পুড়িয়ে শেষ করে দেন।

যা শুনে ব্যাংকের মাথায় হাত পড়ে যাওয়ার যোগাড়। আসলে ব্যাঙ্ক ভুল করে সেই তরুণীর অ্যাকাউন্টে আনলিমিটেড ওভারড্রাফটের সুবিধা দিয়েছিল। আর ব্যস, তরুণী সেই সুযোগে সম্পূর্ণ টাকা খরচ করে দেন নিজের ইচ্ছে মত শপিং করে।আসলে আনলিমিটেড ওভারড্রাফট এমন একটি সুবিধা যেটির মাধ্যমে একজন অ্যাকাউন্ট হোল্ডার ততক্ষণ পর্যন্ত নিজের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা বের করতে পারেন, যতক্ষণ পর্যন্ত সেখানে টাকা শেষ না হচ্ছে।

ব্যাঙ্কের কথায় একে ‘শর্ট টার্ম লোন’ও বলা হয়। আর এই সুযোগটি পুরোপরিভাবে নেন ওই তরুণী। যেমন ইচ্ছে লক্সারী জীবন যাপন করতে শুরু করে দেয় সে ওই টাকা দিয়ে। শুধু তাই নয় এই টাকা দিয়ে সে নাকি একটি ফ্লাট অবধি কিনে ফেলে। আর বাদ বাকী আড়াই লাখ টাকা নিজের দ্বিতীয় একাউন্টে জমা করে দেন।

আরো পড়ুন: কোটি কোটি টা’কা প্র’তা’র’ণা, গ্রে’ফ’তা’র আমির খান

এই এত কম সময়ে সে যে এভাবে খরচ করে দেয় এত টাকা তাঁর জন্য তাঁকে শাস্তি দেওয়াও হয়। জানা গিয়েছে, মাত্র ১১ মাসে ক্রিস্টিনের ১৮ কোটি টাকা উড়িয়ে দেওয়ার খবর জানতে পারা মাত্রই ব্যাঙ্ক তাঁর বিরুদ্ধে কেস করে দেয়। সেই কারণে জেলেও যেতে হয় ক্রিস্টিনকে। তবে জানা গিয়েছে এই মামলা নাকি যখন কোর্টে পৌঁছয়, তখন তাঁকে বেকসুর খালাস করে দেওয়া হয়।

ক্রিস্টিন লি সম্পর্কে যতটুকু জানা গেছে তাতে তিনি একজন মালয়েশিয়ার বাসিন্দা। পড়াশোনার জন্য সিডনিতে থাকছিলেন। এই ছাত্রীর থেকে ইতিমধ্যেই আনলিমিটেড ওভারড্রাফটে ৯ কোটি টাকার সম্পত্তি ফিরিয়ে নেওয়া হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে।
তাই অনলাইন ট্রানজেকশন বা ব্যাংক ট্রান্সফার এই সব গুলো বিষয়ই অনেক সাবধানতার সাথে করা উচিত। নাহলেও এরকম ব্লান্ডার যেকারো সাথে হতে পারে।