দীঘার সমুদ্রে কেউ পা ধরে টানছে, ছড়িয়ে পড়লো আতঙ্ক, হুলুস্তুল কান্ড সৈকতে

পিকনিকের উৎসবের আনন্দ মুহূর্তের মধ্যেই বিষাদের কালো ছায়ায় ঢেকে গেল! দীঘার সমুদ্র সৈকতে পিকনিক করতে এসে তলিয়ে গেলেন এক যুবক। মুহূর্তের মধ্যেই সমুদ্রসৈকতে রীতিমতো আতঙ্কের পরিস্থিতি সৃষ্টি হলো। সমুদ্রে স্নান করতে নেমেই বিপত্তি! জলের তলায় নাকি কোনো এক আজব বস্তু রয়েছে, যে বস্তুটি দীঘার সমুদ্রের জলে স্নান করতে নামা পর্যটকদের পায়ে জড়িয়ে যাচ্ছে! শুধু তাই নয়, জলের তলায় যেন পা ধরে টানছে কেউ!

এই ঘটনার দরুন স্বভাবতই দীঘায় বেড়াতে আসা পর্যটকদের মনে বেশ আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে। এরই মাঝে আবার দীঘার সমুদ্রে তলিয়ে গেলেন এক যুবক। অজয় মুর্মু নামের ওই যুবক কেশিয়াড়ি থেকে বন্ধুদের সঙ্গে দল বেঁধে দীঘায় এসেছিলেন পিকনিক করতে। তাদের দলে ছিলেন ৪০ জন লোক। অন্যান্যদের মতো এদিন তিনিও দীঘার সমুদ্রে স্নান করতে নেমেছিলেন।

অজয়ের ছোট ভাই কালো চাঁদ মুর্মু জানাচ্ছেন, এদিন সকাল ১০ টার সময় নিউ দিঘা মেরিনাঘাটের সমুদ্রে স্নান করতে নেমে ছিলেন ওই যুবক। আচমকা ঢেউয়ের টানে নিখোঁজ হয়ে যান তিনি। তার ভাই এবং অন্যান্যরা বহু খোঁজাখুঁজির পরেও তাকে উদ্ধার করতে সমর্থ হন নি। শেষমেষ তারা নুলিয়াদের শরনাপন্ন হন। তাদের বহু প্রচেষ্টার পর শেষমেষ ওই ব্যক্তির নিথর দেহ উদ্ধার করা সম্ভব হয়। ওল্ড দিঘার জগন্নাথ সমুদ্র স্নান ঘাট থেকে নিহত ওই যুবকের মৃতদেহ উদ্ধার করেন নুলিয়ারা। পরিবার-পরিজনেরা দেহটিকে অজয় মুর্মুর দেহ বলেই শনাক্ত করেছেন। দীঘা থানার পুলিশ এরপর মৃতদেহটিকে উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে।