চলছিলো প’র্ণ’ফি’ল্মের শুটিং, যৌ’ন দৃশ্যে অভিনয় চলাকালীন পুলিশের হানা, আটক মডেল ও পরিচালক

বলিউডের শুটিংয়ের পিছনে চলছিল পর্নোগ্রাফি শুটিং। ভারতে যখন এই পর্নোগ্রাফি তৈরি করা নিষিদ্ধ, সেই সময়ে ধরা পরল এক পরিচালকের সঙ্গে এক মডেল এই শুটিং করতে। ভারতে এই ধরনের পর্নোগ্রাফি করলে কঠোর শাস্তি হতে পারে বলে জানানো হয়েছে কিন্তু তা সত্বেও এধরনের একটি কাজ লুকিয়ে লুকিয়ে করা হচ্ছিল । এই কাজটি মুম্বাইতে হচ্ছিল একটি বাংলো ভাড়া করে। খবর নিয়ে জানা গেছে যে, পুলিশ অনেকদিন ধরেই সন্দেহ করছিল ওই বাংলোটিকে নিয়ে, শেষে পুলিশের সন্দেহ সত্যি হলো। ওই বাংলোতে মাঝে মাঝেই অনেক তারকা এবং মডেলদের আসতে দেখা গেছে। তাদের সঙ্গে অনেক ক্যামেরা ল্যাপটপ লাইট থাকত।

ওই বাংলোতেই চলত পর্নোগ্রাফির শুটিং। স্থানীয় অনেক লোকজনদেরও সন্দেহ হয়েছিল এবং তার পরেই তারা পুলিশকে জানিয়েছিল । এরপর যখন পুলিশি বাংলোতে অভিযান চালাতে যায়, তার পরেই সম্পূর্ণ ব্যাপারটি সকলের নজরে আসে।শুক্রবার দিন পুলিশ ওই বাংলোতে যায় তল্লাশি করতে এবং সেইখানেই দুইজন লাইটম্যান এবং ক্যামেরাম্যান ও পরিচালক সহ ওই বাংলো থেকে উদ্ধার করা হয় প্রায় ৫ লক্ষ টাকার ল্যাপটপ মোবাইল এবং ক্যামেরা।

ওই পরিচালকের ব্যাংক একাউন্টে প্রায় ৩৬ লক্ষ টাকার সন্ধান মেলে এবং যেটা পুলিশ বাজেয়াপ্ত করে দিয়েছে। মডেলকে যখন এই ঘটনাটি সম্পর্কে জেরা করা হয় তখন তিনি সমস্ত কিছু খুলে বলেন। তিনি জানান যে, অনেকদিন ধরেই সকলের আরালে এই কাজটি হচ্ছে এবং সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে টাকা রোজগার করা হতো। টাকার বিনিময়ে অনেক পার্সোনাল ভিডিও পাঠানো হতো। এরপর যখন সকল ঘটনা সকলের সামনে আসে। তার পরেই পুলিশ সবাইকে গ্রেপ্তার করে।