এসে গেছে ভয়ানক ঘূর্ণিঝড়ের মরশুম, তান্ডব দেখতে হতে পারে বঙ্গোপসাগর উপকূলের বিস্তীর্ণ এলাকায়

আর মাত্র কয়েকটা দিন বাদেই এপ্রিল মাস শুরু হবে। এপ্রিল মাসের শুরু মানেই ঝড়ঝঞ্ঝার কাল শুরু। বাংলা জুড়ে দাপিয়ে বেড়াবে কালবৈশাখী। আবার এপ্রিল-মে মাসের শুরু মানেই ভারত এবং আরব সাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় বাংলায় মারাত্মক প্রভাব ফেলার সম্ভাবনা থেকে যায়। এর আগের বছর গুলিতেও এই সময় কালে ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড়ের সাক্ষী থেকেছে বাংলা।

এপ্রিল মাসে প্রধানত ভারত মহাসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় আক্রমণ চালায় পশ্চিমবঙ্গ, মায়ানমার, বাংলাদেশের উপর। প্রসঙ্গত, ১৯৯৯ সালের ২৬শে এপ্রিল থেকে ৫ মে-এর মধ্যে উড়িষ্যা উপকূলে ব্যাপক ধ্বংসলীলা চালিয়েছিল ঘূর্ণিঝড় “ফনি”। বহু মানুষের প্রাণ গিয়েছিল সেই ঝড়ে। বহু সম্পত্তি ঘরবাড়ি নষ্ট হয়েছিল সেই ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড়ে।

মে মাসে প্রধানত আরব সাগর এবং বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপের দরুন ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড়ের প্রকোপ দেখা দেয়। বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় প্রধানত উড়িষ্যা, বাংলাদেশ এবং পশ্চিমবঙ্গে তান্ডব চালায়। অপরপক্ষে আবর সাগরে উৎপন্ন ঘূর্ণিঝড় ওমান, ইয়েমেন, সোমালিয়ার উপকূলীয় এলাকার উপর আছড়ে পড়ে তান্ডব চালায়।

জুন মাসে আবার বঙ্গোপসাগরের তুলনায় আরব সাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় অত্যন্ত ভয়ঙ্কর রূপ ধারণ করে। ওমান ও ইয়েমেনের উপর ভয়ঙ্কর তান্ডব চালায় এই ঝড়। যেমনটা ঘটেছিল ২০০০ সালে। এরপর আবার ২০০৭ সালেও ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড়ের কারণে কাকিনাড়ায় ভূমিধস হয়।