Xiaomi’র ফোন ব্যাবহার করেন, তথ্য চুরির গুরুতর অভিযোগ Xiaomi’র বিরুদ্ধে

তথ্য চুরির গুরুতর অভিযোগ Xiaomi'র বিরুদ্ধে

মারাত্মক অভিযোগ উঠল শাওমির বিরুদ্ধে। সম্প্রতি এক ইন্টারনেট সুরক্ষা সংস্থা শাওমির বিরুদ্ধে অভিযোগ এনেছে, গ্রাহকের ব্রাউজিং ডেটা নিঃশব্দে চিনে পাঠাচ্ছে শাওমি। শাওমি চিনে আলিবাবার সার্ভারে গ্রাহকের ব্রাউজিং ডেটা পাঠায় বলে জানানো হয়েছে। ওয়েব ব্রাউসারের তথ্যের সঙ্গে ‘ইনকগনিটো’ মোডের ব্রাউজিং ডেটাও চিনে পাঠাচ্ছে শাওমি। তবে এই অভিযোগ খারিজ করেছে শাওমি। শাওমির তরফ থেকে বলা হয়েছে, গ্রাহকের পরিচয় গোপন রেখে ব্রাউজিং ডেটা সংগ্রহ করা হলেও তা অন্য কোম্পানির সঙ্গে শেয়ার করা হয় না।

ইন্টারনেট সুরক্ষা গবেষক গাবি সার্লিগ ও অ্যান্ড্রু টিয়ের্নি শাওমি ফোনের সুরক্ষা গাফিলতি সামনে এনেছেন। তাঁরা জানিয়েছেন, গ্রাহকের সম্মতি না নিয়েই ব্রাউজিং ডেটা সংগ্রহ করছে শাওমি। সম্প্রতি জনপ্রিয় ফোর্বস ম্যাগাজিনে প্রকাশিত রিপোর্টে এই কথা জানানো হয়েছে। সার্লিগ জানিয়েছেন, তাঁর Redmi Note 8 ফোনের ব্রাউজিং ডেটা আলিবাবা সার্ভারে পাঠিয়েছে শাওমি।গবেষকরা জানিয়েছেন, শাওমি ফোনে সুরক্ষায় গাফিলতির জন্য ব্যক্তিগত জীবনের গোপনীয় তথ্য ফাঁস হয়ে গিয়েছে। Mi এবং Redmi  ফোনে এই জন্য অতিরিক্ত ফিচার যোগ করেছে শাওমি। সার্লিগ আরও বলেন, ব্রাউজিং ডেটা ছাড়াও স্মার্টফোনে কোন ফোল্ডার ওপেন করেছেন সেই তথ্য সংগ্রহ করেছে শাওমি। এছাড়াও স্মার্টফোনের কোন কোন স্ক্রিন ব্যবহার হচ্ছে সেই তথ্য পাচার করছে শাওমি।

রাশিয়া এবং সিঙ্গাপুরের সার্ভারে এই সব তথ্য পাচার হচ্ছে বলে অভিযোগ। সার্লিগ Redmi Note 8 ছাড়াও একাধিক শাওমি ফোন থেকে তথ্য পাচারের হদিস পেয়েছেন। Mi 10, Redmi K20 এবং Mi Mix 3 ফোনগুলির সুরক্ষায় গাফিলতি দেখিয়ে দিয়েছেন তিনি। সার্লিগ ও টিয়ের্নি আরও জানিয়েছেন, Google Play Store থেকে Xiaomi Browser ডাউনলোড করলেও একই সমস্যা হচ্ছে। Play Store থেকে প্রায় দেড় কোটি বার এই ব্রাউজার ডাউনলোড হয়েছে। গ্রাহকের স্মার্টফোন ব্যবহারের অভ্যাস বোঝার জন্য এই ডেটা সংগ্রহ করে থাকতে পারে শাওমি।

এই জন্য শাওমি স্টার্ট আপ ডেটা অ্যানালিটিক্স কোম্পানি Sensor Analytics-এর সঙ্গে হাত মিলিয়েছিল। সার্লিগ ও টিয়ের্নি যে সার্ভারের খোঁজ পেয়েছেন, সেখানে Sensor Analytics এর যোগ রয়েছে। তবে এই দাবি খারিজ করেছে শাওমি। শাওমির তরফ থেকে বলা হয়েছে, এই গবেষণার ফল সঠিক নয়। গ্রাহকের সুরক্ষা এবং গোপনীয়তায় সবথেকে বেশি জোর দেওয়া হয়। তবে পরিচয় গোপন রেখে ব্রাউজিং ডেটা সংগ্রহের কথা স্বীকার করেছে শাওমি। গ্রাহকের স্মার্টফোন ব্যবহারের অভিজ্ঞতাকে আরও ভালো করতে এই কাজ করা হয় বলে জানানো হয়েছে শাওমির তরফ থেকে।

সব খবর সরাসরি পড়তে আমাদের WhatsApp  Telegram  Facebook Group যুক্ত হতে ক্লিক করুন