স্যালুট, LOC পার করে আসা পাক কিশোরকে ফেরত পাঠালো ভারতীয় সেনা

সীমান্তে ফের ভারতীয় সেনাবাহিনীর মানবিকতার দিকটি ফুটে উঠলো। পাকসেনা এবং জঙ্গিদের প্রতি ভারতীয় সেনাবাহিনী যতই কড়া মনোভাব পোষণ করুক না কেন, সে রাষ্ট্রের সাধারণ নাগরিকদের সঙ্গে কখনোই বিরূপ আচরণ তারা করেন না। তারই দৃষ্টান্ত রইলো জম্মু-কাশ্মীরের পুঞ্চে। ভারতীয় সেনাবাহিনীর তরফ থেকে জানানো হয়েছে, সীমান্তের ওপারের এক ১৪ বছর বয়সী বালক নিজের অজান্তেই ভুলবশত ভারতীয় ভূখণ্ডে প্রবেশ করেছিল।

পাক অধিকৃত কাশ্মীরের মীরপুর জেলার বাসিন্দা ১৪ বছর বয়সী ওই বালকের নাম আলি হায়দার। ভারতীয় সেনার বয়ান অনুসারে, আলি নিজের অজান্তেই নিয়ন্ত্রণ রেখা পেরিয়ে পাক অধিকৃত কাশ্মীর থেকে ভারতীয় ভূখণ্ডে প্রবেশ করে ফেলেছিল। ভারতীয় সেনার নজরে পড়তেই তাকে নিরাপদ আশ্রয় দেওয়া হয়। একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে সেনার তরফ থেকে বলা হয়েছে, ওই বালক একেবারেই নির্দোষ। সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে প্রবেশ করার পেছনে তার কোনো গোপন অভিসন্ধি ছিল না।

তাকে উদ্ধার করার পর ভারতীয় সেনার তরফ থেকে তাকে প্রয়োজনীয় খাবার এবং জামা কাপড় দেওয়া হয়। পাশাপাশি, ওই বালক যাতে দ্রুত সীমান্তের ওপারে তার নিজের বাড়িতে ফিরে যেতে পারে সেই উদ্দেশ্যে প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি শুরু করা হয়। এদিকে পাকিস্তানের তরফ থেকেও আলি হায়দারকে মানবিকতার খাতিরে দেশে ফিরিয়ে দেওয়ার আর্জি জানানো হয়। গত ৬ই জানুয়ারি ভারতের তরফ থেকে আলিকে পাকিস্তানে ফেরত পাঠানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ২৪শে ডিসেম্বর ঠিক একইভাবে ভুলবশত নিয়ন্ত্রণ রেখা পেরিয়ে মহম্মদ বসির নামক এক ভারতীয় নাগরিকও পাকিস্তানে ঢুকে পড়ে।জম্মু-কাশ্মীর পুলিশ এবং সিভিল প্রশাসনের সহায়তায় আলি হায়দারকে পুঞ্চের রাওয়ালকোট ক্রসিং দিয়ে পাকিস্তান কর্তৃপক্ষের হাতে তুলে দেওয়া হয়। অপরপক্ষে পার্ক কর্তৃপক্ষও মহম্মদ বসিরকে ভারতে ফিরিয়ে দিয়েছে।