বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়ে হয়েছেন মেয়ের বাবা, রাজনৈতিক কেরিয়ার ঠিক রাখতে খুন হলো কন্যা

গোপন সম্পর্কের জেরে সন্তানের জন্ম গ্রহণে বিব্রত বাবা নিজে হাতে নিজের দুই বছর বয়সী কন্যা সন্তানকে খুন করলেন। বর্বরোচিত এই ঘটনাটি ঘটেছে কর্ণাটকের চিত্রদুর্গা জেলায়। অভিযুক্ত ওই ব্যক্তির নাম নিনগাপ্পা। তিনি আবার এক রাজনৈতিক দলের নেতা। দুই বছর বয়সী ওই শিশু সন্তানটি বড় হলে ভবিষ্যতে তার রাজনৈতিক জীবনের পথে অন্তরায় হয়ে দাঁড়াতে পারে, এই ভয়েই তিনি তাকে খুন করে বসলেন নিনগাপ্পা।

সূত্রের খবর, অভিযুক্ত নিনগাপ্পার বয়স ৩৫ বছর। গত চার বছর যাবৎ ২৯ বছর বয়সী এক তরুণীর সঙ্গে সম্পর্ক রাখছিলেন তিনি। তারই ফলশ্রুতিতে দুই বছর আগে ওই কন্যা সন্তানের জন্ম হয়। তরুণীর পরিবারের তরফে সবকিছু জানাজানি হতেই ওই তরুণীকে বিয়ে করার জন্য নিনগাপ্পার উপর চাপ দেওয়া হতে থাকে। এই সব কিছুর জন্য নিজের মেয়েকেই দায়ী করে বসেন নিনগাপ্পা।

তরুণীকে বিয়ে করতে হলে তার গোপন কার্যকলাপ সম্পর্কে সবাই জেনে যাবে। যা তার পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্রার্থী হিসেবে জেতার ক্ষেত্রে এবং ভবিষ্যতে রাজনৈতিক কর্মজীবনে কু-প্রভাব ফেলবে বলেই মনে করেছিলেন তিনি। অভিযোগ, সম্প্রতি ওই তরুণীর অনুপস্থিতিতে একটি নির্জন স্থানে দুই বছর বয়সী ওই শিশুকন্যাটির শ্বাসরোধ করে খুন করে নিনগাপ্পা। শুধু তাই নয়, পরিকল্পিতভাবে খুন করে শিশুটির দেহ মাটি চাপা দিয়ে দেয় সে।

নিনগাপ্পার আগেও একবার বিবাহ হয়েছিল। তার তিনটে সন্তানও রয়েছে। তবুও ওই তরুণী সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে ছিলেন তিনি। তরুণী যখন মেয়েটির কথা জানতে চান তখন প্রথমদিকে তা এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন নিনগাপ্পা। পরে অবশ্য বাদানুবাদের মুখে পড়ে ওই তরুণীকে সন্তানের কথা ভুলে যাওয়ার নির্দেশ দেন তিনি। সন্দেহের বশবর্তী হয়ে পুলিশের কাছে অভিযোগ জানালে তাকে গ্রেপ্তার করে সত্যিটা জানতে পারে পুলিশ। বর্তমানে নিনগাপ্পা পুলিশি হেফাজতেই রয়েছে।