প্রতীক্ষার অবসান, জনগণের জন্য ক’রোনা ভ্যা’কসিন বাজারে আনল রাশিয়া

যে অপেক্ষায় ছিল বিশ্ব বাসী এবার সেই অপেক্ষার অবসান। কারণ এবার রাশিয়ার ভ্যাকসিন স্পুটনিক-৫ এসে গেল বাজারে। আর এরফলেই এবার সাধারণ মানুষের দেহে প্রয়োগ প্রক্রিয়া চালু করে দেওয়া হবে এর মধ্যেই। রাশিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তরফ থেকে বারবার বলা হয়েছে এই ভ্যাকসিনের নতুন ডোজ এবার আসতে চলেছে বাজারে। আর সেই প্রতীক্ষার অবসান শেষ পর্যন্ত ঘটল, রাশিয়ার তরফ থূখে থেকে জানানো হয়েছে আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই দ্রুত নাগরিকদের কাছে এই টিকা পৌঁছে দেওয়া হবে, যা নিয়ে অনেকটাই আশাবাদী রাশিয়া।

রাশিয়ার এই ভ্যাকসিন তৈরীর করা হয়েছে গামালিয়া সায়েন্টিফিক রিসার্চ ইনস্টিটিউট অফ এপিডেমিয়োলজি অ্যান্ড মাইক্রোবায়োলজির তরফ থেকে। রাশিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রকের ও আরডিআইএফের সাথে হাত মিলিয়েই তেরী করা হয়েছে এই ভ্যাকসিন। তবে এই ভ্যাকসিন নিয়ে রাশিয়া আশা বাদী থাকলেও যে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও বিভিন্ন দেশ আশাবাদী নয়, সেটা জানিয়ে দিয়েছে। ইতিমধ্যে রাশিয়া কারো তোয়াক্কা না করেই এই ভ্যাক্সিনের প্রথম ডোজ বাজারে নিয়ে এসেছে সাধারণ মানুষের জন্য। এই ভ্যাক্সিন কে এখনও ছাড়পত্র দেয়া নি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। তবে রাশিয়া নিজেদের প্রমাণ করতেই এই উদ্যোগ যে নিয়েছে সেটা স্পষ্ট।

তবে এর আগেই রাশিয়া জানিয়েছিল এই ভ্যাক্সিনের গুণগত মান পরীক্ষা করেই দেওয়া হবে মানুষকে। তবে এই নিয়ে ল্যানসেট রিপোর্ট প্রকাশ করলে, যে প্রাথমিক ট্রায়ালে এটি সফল, মানুষের দেহে তৈরি হয়েছে অ্যান্টিবডি। তাই এবার সেই কথার কয়েকদিনের মধ্যেই ভ্যাক্সিনের প্রথম ব্যাজ আসল সামনে। গামালিয়া সায়েন্টিফিক রিসার্চ ইনস্টিটিউট অফ এপিডেমিয়োলজি অ্যান্ড মাইক্রোবায়োলজির তরফ থেকে জানানো হয়েছে, এটি করোনার বিরুদ্ধে লড়াই করবে বলেই, ভ্যাকসিনের প্রথম ব্যাজ ভারতে নিয়ে এসেছে।