দলের অন্দরে জনসংযোগ, “আমিও দিদির সৈনিক” নামে নয়া কর্মসূচির সূচনা শাসক দলের

ফাইল ছবি

একুশের বিধানসভা নির্বাচনের প্রেক্ষাপটে রাজ্য জুড়ে দলবদল মরসুম চলছে। এই দলবদল রাজ্য রাজনীতিকে বেশ প্রভাবিত করছে। এর ফলে সবথেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে রাজ্য শাসকদল। অপরপক্ষে বঙ্গ বিজেপি শিবিরের পাল্লা ভারী হচ্ছে। ভাঙ্গন রূখতে এবার এক নতুন পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে রাজ্য শাসকদল। পরিকল্পনা অনুযায়ী “আমিও দিদির সৈনিক” কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করছেন তৃণমূলীয় সমর্থকরা।

তৃণমূল দলের অভ্যন্তর থেকে খবর, “আমিও দিদির সৈনিক” কর্মসূচিতে তৃণমূল সমর্থকরা তাদের ঘরে দলীয় পতাকা উত্তোলন করবেন। শুধু তাই নয়, অন্তত তিন বন্ধু বা সহযোদ্ধাকেও তাদের বাড়িতে পতাকা লাগানোর ব্যাপারে উদ্বুদ্ধ করবেন। এভাবেই কার্যত এক প্রকার জন আন্দোলনের পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে রাজ্যের শাসক দল। আগামী ফেব্রুয়ারি মাসের ১৫ই ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এই কর্মসূচি চলবে। তবে প্রয়োজনে তা বাড়ানো হতে পারে।

ভোটের আগে যেভাবে তৃণমূল দলে ভাঙন ধরেছে তাতে দলীয় কর্মীদের আস্থা যাতে নড়বড়ে না হয়ে যায় সেই উদ্দেশ্যে এই টনিক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে তৃণমূল। সম্প্রতি মালদহতে এই দলীয় কর্মসূচি শুরু হয়েছে। রবিবার পুরুলিয়া এবং বাঁকুড়া জেলার তৃণমূল সমর্থকদের ঘরে ঘরে এই কর্মসূচি শুরু হলো। সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে এই কর্মসূচির জোর প্রচার চালাচ্ছে রাজ্য শাসক দল।

রবিবার পুরুলিয়া জেলা তৃণমূল সভাপতি তথা পুরুলিয়া জেলা পরিষদের শিক্ষা-সংস্কৃতি-তথ্য-ক্রীড়া স্থায়ী সমিতির কর্মাধ্যক্ষ গুরুপদ টুডু মানবাজার এক নম্বর ব্লকের কাদলাগোড়া গ্রামে তাঁর নিজস্ব বাড়িতে এদিন দলীয় পতাকা টাঙিয়েছেন। এই পতাকা যারা উত্তোলন করবেন তারা দলকে এই বার্তাই দেবেন যে তারা কখনোই বিরোধী রাজনৈতিক শিবিরে যোগদান করবেন না। স্বভাবতই এই কর্মসূচিকে রাজনৈতিক মহলে বেশ গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে।