খাবার খেয়ে টাকা মেটাতে অনীহা, হোটেল মালিককে গ্রেফতার করে বিপাকে দুই পুলিশ আধিকারিক

এবার যোগী রাজ্য উত্তরপ্রদেশের পুলিশের বিরুদ্ধেই তোলাবাজির মামলা দায়ের হলো। এক ধাবার মালিক এবং তার কিছু ক্রেতাকে অন্যায় ভাবে গ্রেপ্তার করে উত্তর প্রদেশের পুলিশ। জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের তৎপরতায় দায়ের হওয়া এই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে দুই পুলিশকর্মীকে গ্রেফতারও করেছে উত্তর প্রদেশের পুলিশ প্রশাসন। শুধু তাই নয়, অভিযুক্ত ওই দুই পুলিশ কর্মীকে সাসপেন্ডও করা হয়েছে।

সাম্প্রতিক একটি সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হওয়া প্রতিবেদন অনুসারে, কিছুদিন আগে উত্তর প্রদেশের ইটাহ জেলায় অবস্থিত একটি ধাবায় দুই পুলিশ কর্মী খেতে যান। খাবারের দরুন ৪৫০ টাকা বিল মেটাতে রাজি ছিলেন না ওই দুই পুলিশ কর্মী। ধাবার মালিকের জোরাজুরিতে ১০০ টাকা দিয়েছিলেন তারা। তবে পুরো টাকা না নিয়ে তাদের ছাড়তে রাজি ছিলেন না ওই ধাবার মালিক।

এমতাবস্থায় উভয়পক্ষের মধ্যে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। শেষমেষ ওই দুই পুলিশ কর্মী তাদের আরো কয়েকজন সহকর্মীকে ফোন করে ডেকে আনে। এরপর তারা ওই ধাবার মালিক প্রবীণ কুমার যাদব, তাঁর ভাই এবং ধাবার ৮ জন ক্রেতাকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায়। শুধু তাই নয়, তাদের বিরুদ্ধে খুনের চেষ্টা, মাদক মামলাসহ ১২ দফার মিথ্যে মামলাও দায়ের করে পুলিশ।

সংবাদমাধ্যম মারফত এই ঘটনার কথা জানতে পারে জাতীয় মানবাধিকার কমিশন। এরপর তারাই স্বতঃপ্রণোদিত ভাবে মামলাটি গ্রহণ করে উত্তর প্রদেশের পুলিশের কাছে ঘটনার রিপোর্ট চেয়ে পাঠান। উত্তরপ্রদেশ পুলিশ কার্যত ধাবার মালিক এবং তার ক্রেতাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করেছিল। তবে কমিশনের হস্তক্ষেপে মামলা ঘুরে গিয়েছে। বর্তমানে তোলাবাজিসহ একাধিক অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে মামলা দায়ের হয়েছে ওই দুই পুলিশ কর্মীর বিরুদ্ধে।