রাজীব কিছুদিনের অতিথি, বুঝতে পেরে হাল ছেড়ে দিয়েছে দলের শীর্ষ নেতৃত্ব

আজ দুপুর তিনটের দিকে তৃণমূলের “বিদ্রোহী” নেতা রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় ফেসবুক লাইভে আসবেন। এই লাইভ মারফত তিনি কার্যত ভার্চুয়ালি “জনতার দরবার” করবেন। রাজ্যের যেকোনো প্রান্তের বাসিন্দা তার সেই লাইভ দেখতে পারবেন এবং লাইভে অংশগ্রহণ করতে পারবেন। এভাবেই সরাসরি জনতার সঙ্গে কথা বলবেন রাজ্যের বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়।

বিগত বেশ কয়েকদিন ধরেই রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় যেভাবে দলের বিরোধিতা করে আসছেন তাতে মমতা সরকার কার্যত বেশ বুঝে গিয়েছে, দলবদলের মরসুমে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে দল টিকিয়ে রাখা যাবে না। রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় এখন তৃণমূলের কাছে কার্যত “ক্ষণিকের অতিথি”! বিগত কয়েকদিন ধরে দলের বিরুদ্ধে তার অবস্থান এবং সর্বোপরি রাজীবের আজকের ফেসবুক লাইভের পরিকল্পনা মোটেই ভালোভাবে নিচ্ছে না তৃণমূল দল।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, অন্যান্য দলবদলকারীদের মতোই রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের দলের প্রতি ক্ষোভ প্রশমনের চেষ্টা করতে কার্পণ্য করেননি দলীয় নেতৃত্বরা। দলের তরফ থেকে পার্থ চট্টোপাধ্যায় এবং কলকাতা পুরসভার চেয়ারম্যান ফিরহাদ হাকিম বেশ কয়েক দফায় তার সঙ্গে কথা বলেছেন। তবে এতে বিশেষ লাভ কিছুই হয়নি। রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় তার সিদ্ধান্তে অনড়।

রাজনৈতিক মহলের অনুমান, আজকের ফেসবুক লাইভ কার্যত তার নতুন পথ চলার একটি সোপান স্বরূপ। নতুন করে রাজনৈতিক জীবন শুরু করার আগে তিনি সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথা বলে নিতে চাইছেন। তাদের থেকেই তিনি তার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা প্রসঙ্গে পরামর্শ চাইবেন। এদিকে তৃণমূল দলের সকল কর্মসূচি এড়িয়ে চলছেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। তৃণমূলও অবশ্য তাকে দলে ফেরানোর জন্য বিশেষ আগ্রহ দেখাচ্ছে না। কারণ রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় দলবদল করবেন, এ একপ্রকার নিশ্চিত হয়ে গিয়েছে।