দুর্গা পূজোর অনুমতি দিচ্ছে না রেল, পাশে দাঁড়াল মমতা সরকার

সামনেই দূর্গাপূজা। বাঙালির সবথেকে বড় পার্বণ। তবে এবারের পার্বণে রীতিমতো বাদ সাধছে রেল কর্তৃপক্ষ। রেল কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, এবার রেলের জমিতে দূর্গা পূজার আয়োজন করতে পারবেনা পূজা কমিটি গুলি। উল্লেখ্য, অন্যান্যবারেও শিলিগুড়ি শহর এবং মহকুমার বেশকিছু পুজো কমিটিকে রীতিমতো সাধ্য সাধনা করে রেলের কাছ থেকে পূজার অনুমতি আদায় করা হয়।

সম্প্রতি, রাজ্যের পর্যটন মন্ত্রী গৌতম দেব জানালেন, ১৫ থেকে ১৬টি পুজো কমিটিকে এবছর পুজো করার অনুমতি দিচ্ছে না রেল কর্তৃপক্ষ। মঙ্গলবার, শিলিগুড়ির পুজো কমিটিগুলিকে নিয়ে একটি প্রশাসনিক বৈঠকের আয়োজন করেন রাজ্যের পর্যটন মন্ত্রী। এই বৈঠকেই তিনি জানালেন, রেলের অনুমতি না নিয়েই কয়েকটি জায়গাতে দূর্গা পূজার আয়োজন করা হয়েছে। কিন্তু সেক্ষেত্রে সরকারি সাহায্য পাবে না পুজো কমিটি গুলি।

পুজো কমিটি গুলি যাতে সরকারি সাহায্য পেতে পারে তার জন্য রেলের অনুমতি নেওয়ার ব্যবস্থা করা হচ্ছে বলেই জানালেন মন্ত্রী। পর্যটনমন্ত্রী সাফ কথা, কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে অনুমতি না মিললেও, পুজো বন্ধ থাকবে না। কেন্দ্রের অনুমতি না মিললেও প্রয়োজনে রাজ্য সরকারের অনুমতিতেই পুজোর আয়োজন করতে পারবে পুজো কমিটি গুলি।

উল্লেখ্য,‌ এনজেপি’‌র রেল ইন্সটিটিউটের মাঠে সেন্ট্রাল কলোনির পুজোর অনুমতি পাওয়া যায়নি। এ প্রসঙ্গে পুজো কমিটির সম্পাদক দেবাশিস সরকারের বক্তব্য, পুজোর অনুমতি চেয়ে কাটিহার ডিভিশনে আবেদন জানানো হবে। দেবাশীষ বাবুর দাবি, ছোট করে হলেও এবার পুজো হবেই। পুজো উদ্যোক্তারা এখন রাজ্য সরকারের হস্তক্ষেপের উপরেই ভরসা করছেন।