রাফাল আতঙ্কে শান্তির বার্তা চীন-পাকিস্তানের, দিচ্ছে একের পর এক বার্তা

গত বুধবার ঠিক বিকাল ৩ টা ১৫ মিনিটে ভারতের মাটি ছুঁয়েছে রাফাল, আম্বালা সেনঘাটিতে অবতরণ করেছে রাফাল, আর সেই স্পর্শই বুঝিয়ে দিয়েছে ভারতের শক্তি, কারন তা না হলে, ভারতের মাটি রাফাল ছোয়ার পরের থেকেই সীমান্তের দেশ গুলোর থেকে বিভিন্ন ধরনের বিবৃতি উঠে আসছে, এদিকে পাকিস্তান অসামঞ্জস্যপূর্ণতার কথা বলছে তো আরেক দিকে চিন শান্তির বার্তা শোনাচ্ছে, রাফাল নামার আগে এমন কথা শোনা যায় নি তাদের মুখে, তাহলে এতে স্পষ্ট প্রমাণ হয় যে, তারা কতটা ভয় পেয়েছে, এমনটাই মনে করছে অনেকে।

মাত্র ২ দিন হয়েছে রাফাল এসে পৌঁছেছে ভারতে, আর তাতেই দুই দেশের রুপ একেবারে পালটে গেছে, তাদের কপালে যে চিন্তার ভাঁজ পরে গেছে, সেটার তাদের কথার মাধ্যমেই স্পষ্ট হচ্ছে। এদিকে পাকিস্তান আর চুপ করে থাকতে না পেরে, বিশ্বের বিভিন্ন দেশের কাছে অনুরোধ করেছে, ভারত যেনো এভাবে অস্ত্র বৃদ্ধির প্রবণতা কমায়, সেটা বলার জন্য। এখানেই শেষ না , পাকিস্তানের তরফ থেকে আরও বলা হয় যে, আসলে ভারতের এই অস্ত্র বৃদ্ধি করার প্রবণতা, কিন্তু অযথা এশিয়ার অন্যান্য দেশ গুলোর ওপরে প্রভাব সৃষ্টি করবে, আর তার ফলেই অস্ত্র কেনাবেচার প্রতিযোগিতা বৃদ্ধি পাবে ।

এদিকে চিনের কথা যদি বলা হয়, তাহলে বলতে হয়, চিনের মুখেও এখন নরম সুর শোনা যাচ্ছে, কারণ চিনের বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র জানিয়েছেন, দুই দেশের মধ্যে যেনো স্থিতাবস্থা, শান্তি বজায় থাকে, সেটাই আমাদের লক্ষ্য, কোনো ভাবেই যেনো দুই দেশের মধ্যে শান্তি বিঘ্ন না ঘটে, সেটার দিকে দুই দেশের খেয়াল রাখতে হবে, তাছাড়া এর জন্য কূটনৈতিক স্থিতাবস্থাটাও খুব গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু রাজনাথ সিং, ভারতের মাটিতে রাফাল ছোয়ার পরের থেকেই, একেবারে চিন ও পাকিস্তানকে হুঁশিয়ার দিয়েই বলেছেন, ভারতের সার্বভৌমত্ব, ভারতের নিরাপত্তা ও ভারতের জমির দিকে কেউ নজর দিলে, কেউ কেড়ে নিতে চাইলে, এবার তাদের কোনোভাবেই আর ছেড়ে কথা বলা হবে না।।