নিজ গলায় জাতীয় সংগীত গাইছেন রবীন্দ্রনাথ, ভিডিও দেখে আপ্লুত নেটদুনিয়া

আসমুদ্র হিমাচলকে যিনি তাঁর গানের ছন্দে এক সূত্রে বেঁধে রাখতে সমর্থ হয়েছিলেন তিনিই কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। দেশের সীমানা পেরিয়ে বিদেশের মাটিতেও সমান সমাদৃত তিনি। তার আমলে এখনকার মতো সোশ্যাল মিডিয়া ছিলনা। কিন্তু, তার খ্যাতি, কীর্তি, কবিতা, গান, গল্প উপন্যাস, নাটক, চিত্রনাট্যের মহিমা জনজাতি নির্বিশেষে প্রতিটি মানুষের ঘরে পৌঁছে গেছে। এখনো তাকে ছাড়া অসম্পূর্ণ নৃত্য-গীতানুষ্ঠান।

ব্রিটিশ আমলে, জাতি-ধর্ম-বর্ণনির্বিশেষে ভারতবাসীকে একত্রিত করে রাখার মন্ত্র প্রদান করেছিলেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। যে মন্ত্র পরবর্তীকালে দেশের জাতীয় সংগীত হিসেবে গ্রহণীয় হয়। সেই “জন গণ মন অধিনায়ক জয় হে”, সঙ্গীতের মহিমা অতীত-বর্তমান-ভবিষ্যত কাল নির্বিশেষে অনন্তকাল ধরে ভারতবাসীর মনে অবিচল থাকবে। তৎকালীন সময়ে, প্রযুক্তি এত উন্নত ছিল না। তবুও সেই সময় কাল থেকে রবীন্দ্রনাথের যে সমস্ত ছবি এবং ভিডিও কিংবা অডিও পাওয়া গেছে, এখনো তা সোশ্যাল মিডিয়ার বাসিন্দাদের কাছে তুমুল জনপ্রিয়তা লাভ করে।

চলতি বছরের স্বাধীনতা দিবসে স্বয়ং রবি ঠাকুরের কন্ঠে দেশের জাতীয় সংগীত শুনে আপ্লুত দেশবাসী। সোশ্যাল মিডিয়ায় এ সংক্রান্ত একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। যে ভিডিওতে স্বয়ং রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরকে “জন গণ মন অধিনায়ক” গানটি গাইতে দেখা যাচ্ছে। যিনি, তার লেখনী শৈলীর গুনে দেশের সংস্কৃতিকে এক নতুন মাত্রা দিয়েছেন তার কণ্ঠস্বর, গায়কী কেমন তা জানতে স্বভাবতই বেশ কৌতূহল বোধ করেন সাধারণ মানুষ। তাই স্বাধীনতা দিবসে যখন এই ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করা হয়, তখন মুহূর্তের মধ্যেই নেটিজেনদের কাছে তা ভাইরাল হয়ে যায়।