শীতলকুচি কাণ্ড নিয়ে জনস্বার্থ মামলা কলকাতা হাইকোর্টে

একুশের নির্বাচনে রক্তাক্ত বাংলা। চতুর্থ দফার নির্বাচন সব সীমানা অতিক্রম করে ফেলেছে। এই একদিনেই নির্বাচন সম্পন্ন করতে গিয়ে শীতালকুচি কান্ডকে কেন্দ্র করে উত্তাল হয়ে ওঠে রাজ্য রাজনীতি। কারণ এই দিনে কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে পাঁচ-পাঁচটি তরতাজা প্রাণ ভোটের বলি হয়েছে। এমন ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে এবার কলকাতা হাইকোর্টে একটি জনস্বার্থ মামলা দায়ের করা হলো।

বিশিষ্ট আইনজীবী আমিনুদ্দিন খান সম্প্রতি কলকাতা হাইকোর্টে শীতালকুচি কাণ্ডের উপর ভিত্তি করে জনস্বার্থ মামলাটি দায়ের করেছেন। এই মামলায় মূলত কিভাবে এমন কান্ড ঘটল সেই প্রশ্ন আদালতে তোলা হয়েছে এবং নিহতদের পরিবারকে উপযুক্ত ক্ষতিপূরণের আবেদন পেশ করা হয়েছে। আগামীকাল হাইকোর্টে উঠবে এই মামলাটি।

প্রসঙ্গত, চতুর্থ দফার ভোটের দিন শীতলকুচির পাঠানটুলিতে ১২৬ নম্বর বুথের বাইরে এলোপাথারি গুলি চালানোর অভিযোগ ওঠে কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে। ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে জাতীয় নির্বাচন কমিশন রিপোর্ট চেয়ে পাঠিয়েছে। এই ঘটনার পর কমিশনের তরফ থেকে একটি বিশেষ নির্দেশিকা প্রকাশ করে জানানো হয়, যে কোন কেন্দ্রে ভোটের ৭২ ঘন্টা আগে কোন রাজনৈতিক দল ওই কেন্দ্রে প্রবেশ করতে পারবে না।

এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে বিজেপি এবং তৃণমূল কার্যত একে অপরের প্রতি কাদা ছোড়াছুড়ি করছে। বিজেপির অভিযোগ, তৃণমূলের উসকানিতেই কেন্দ্রীয় বাহিনী গুলি ছুড়তে বাধ্য হয়েছে। অপরদিকে তৃণমূলের অভিযোগ, কেন্দ্রের নির্দেশেই গুলি চালিয়েছে কেন্দ্রীয় বাহিনী।