ভ্যা’ক’সি’ন পিছু মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ ত’হ’বি’লে বেসরকারি সং’স্থা দি’চ্ছে ৩১৫ টা’কা: শুভেন্দু

আজ থেকে শুরু হচ্ছে বিধানসভার অধিবেশন। চলতি দফার বিধানসভায় রাজ্য সরকারের বিপরীতে প্রবল পরাক্রমি বিরোধী শক্তি হিসেবে উঠে এসেছে বিজেপি। অতএব বিধানসভায় তৃণমূলের আর বিজেপির সংঘাত অনিবার্য। বিধানসভার অধিবেশন শুরু হওয়ার আগেই দফায় দফায় দিল্লিতে ছুটছেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী। কেন বারবার দিল্লিতে ডাক পড়ছে তার? রাজনৈতিক মহলে শুরু হয়েছে জোর গুঞ্জন।

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের অনুমান, একুশের বিধানসভায় সংসদে বিরোধী দলের ভূমিকা কি হবে, বিরোধী দলের নেতার ভূমিকা কি হবে, রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে রণকৌশল কিভাবে সাজানো হবে, সেই সম্পর্কিত বিস্তারিত আলোচনা করার জন্যই শুভেন্দু অধিকারীকে দিল্লিতে ডেকে পাঠানো হচ্ছে। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের তরফ থেকে আবার ডাক পেয়েছেন শুভেন্দু। চলতি দফার বৈঠকেও এ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা হতে চলেছে বলে অনুমান রাজনৈতিক মহলের।

এদিকে আবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের সঙ্গে দেখা করার পাশাপাশি নারদ মামলার আইনজীবী তুষার মেহতার সঙ্গে দেখা করেছেন শুভেন্দু অধিকারী। যা নিয়ে কার্যত রাজনৈতিক মহলের জল্পনার পারদ চড়ছে। রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের অনুমান, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে শুভেন্দু অধিকারীর দেখা করতে যাওয়াটা নিছক রণকৌশল সাজানো নয়, এর পেছনে অন্য কারণ থাকতে পারে।

এ বিষয়ে অবশ্য শুভেন্দু অধিকারীর বক্তব্য, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ দলনেতা। সাংগঠনিক কারণেই দলনেতার সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন তিনি। রাজ্যজুড়ে ভোট-পরবর্তী যে সন্ত্রাস চলছে, তার পরিপ্রেক্ষিতে আলোচনা করতেই দিল্লি গিয়েছিলেন তিনি। পাশাপাশি কসবার ভুয়ো ভ্যাক্সিনেশন কান্ডকে কেন্দ্র করেও শুভেন্দু অধিকারী ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে। ঘটনা প্রসঙ্গে সিবিআই তদন্ত চালু হওয়া উচিত বলে দাবি করেছেন তিনি। এছাড়াও তার অভিযোগ, পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থা বেশি দাম দিয়ে টিকা বিক্রি করছে। টিকা পিছু ৩১৫ টাকা চলে যাচ্ছে মুখ্যমন্ত্রীর তহবিলে।