ভারতকে আত্মনির্ভর করতে নয়া রেল করিডরের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি

ভারতকে আত্মনির্ভর গড়ে তোলার লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী বিভিন্ন ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করে চলেছে, সম্প্রতি ভারতকে আরো বেশি আত্মনির্ভর করে তোলার জন্য পণ্যবাহী রেল করিডোর উদ্বোধন করলেন তিনি । ১৩০ কিমি দৈর্ঘ্যের করিডোর যা কিনা ডানকুনি থেকে লুধিয়ানা পর্যন্ত সংযোগ স্থাপন করবে। আজ মঙ্গলবার ভার্চুয়াল বৈঠকের মাধ্যমে এই করিডর উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি এখানে জানালেন এই পণ্যবাহী রেল করিডোরের দ্বারা দেশের ব্যবসায়ীরা উপকৃত হবে বিশেষ করে কৃষক থেকে শুরু করে ও অন্যান্য উপভোক্তারা।

এই নিয়ে বিশ্লেষকদের মতে, ভারতের মতোই বিশাল দেশে পণ্যবাহী পরিবহনের জন্য নির্দিষ্ট রেল পরিষেবা অনেকটা উপকৃত করবে দেশের মানুষকে। অর্থাৎ যে সমস্ত কাঁচামাল পচনশীল দ্রব্য দেশের এক প্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে নিয়ে যাওয়া হয়, সেগুলি এখন থেকে নির্দিষ্ট পথে যাতায়াত করবে যার ফলে ব্যবসায়ীরা কৃষকরা ক্ষতির মুখ থেকে বাঁচবে। আর যার ফলে এই দেশের অর্থনীতি সুগম হবে এবং ক্ষতির হাত থেকে বাঁচবে।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বাংলার শালিমার থেকে মহারাষ্ট্রের সাঙ্গলি পর্যন্ত কৃষিট্রেন পরিষেবা চালু করেন। স্বাভাবিকভাবেই মহারাষ্ট্র থেকে বাংলায় বিভিন্ন কাঁচামাল সবজি শস্য নিয়ে আসা সম্ভব হবে। এই নিয়ে প্রধানমন্ত্রী জানায়, কোভিদ পরিস্থিতির প্রথমেই কৃষি ট্রেন চালু হয়,মোট ১০০ টির মত কৃষি ট্রেন চালু করা হয় দেশে যা প্রথমে সপ্তাহের দৈনিক চালানো হলেও পরবর্তীতে সপ্তাহে তিনদিন করে চালানো হয়। এই কৃষক ট্রেন চলাচলের ফলে বাংলার কৃষকদের ওপর একটা ইতিবাচক প্রভাব পড়বে, তাদের উৎপাদিত সবজি বিভিন্ন কাঁচামাল শস্য ও মাছ কম সময়ের মধ্যে দেশের এক প্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে পৌছবে।