অন্য রাজ্যের গাড়ি ধরলেন প্রশান্ত কিশোর, বাংলার পর পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রীর PA হচ্ছেন পিকে

বর্তমান পরিস্থিতিতে পিকে তথা প্রশান্ত কিশোরকেই “রাজনীতির চাণক্য” বলা যেতে পারে। পিকেই একমাত্র ব্যক্তি যার প্রায় কোনো রাজনৈতিক শিবিরের সঙ্গেই কোনো বিরোধ নেই। কংগ্রেস হোক বা বিজেপি, আপ হোক বা তৃণমূল, পিকে সর্বজনীনভাবে গ্রহণযোগ্য। বিশেষত ভোট মঞ্চে পিকের উপস্থিতি রাজনৈতিক শিবিরগুলিকে এক আলাদাই স্বস্তি দেয়। এতদিন বাংলার নির্বাচন মঞ্চ সামাল দিয়ে পিকে এবার পাড়ি দিলেন পাঞ্জাবে।

প্রশান্ত কিশোর এতদিন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভোট কৌশলী হিসেবে কাজ করেছেন। বাংলার নির্বাচন মঞ্চ সামলানোর পাশাপাশি এবার পাঞ্জাবের ভোট মঞ্চ সামলানোর দায়িত্বও পেয়েছেন প্রশান্ত কিশোর। পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিংয়ের ভোট কৌশলী হিসেবে কাজ করতে পাঞ্জাবের রাস্তা ধরলেন প্রশান্ত কিশোর।

পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী স্বয়ং একটি টুইট বার্তায় এই খবর জানিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন, তিনি খুবই আনন্দিত কারণ প্রশান্ত কিশোর পাঞ্জাবে আসছেন। পাঞ্জাবের মানুষের উন্নয়নের স্বার্থে প্রশান্ত কিশোরের সঙ্গে জোট বেঁধে কাজ করবে সরকার। তবে রাজনৈতিক মহলে গুঞ্জন, পাঞ্জাবের মানুষের উন্নয়নের স্বার্থের তুলনায় পাঞ্জাবের আগামী বছরের নির্বাচন ভাবাচ্ছে অমরিন্দর সিংকে।

প্রশান্ত কিশোরের সহযোগিতা নিয়েই পাঞ্জাবের মসনদ ধরে রাখতে চাইছে কংগ্রেস সরকার, এমনটাই মত রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের। গত বিধানসভা নির্বাচনে ১১৭ আসনের মধ্য থেকে পঞ্জাব বিধানসভায় ৭৭টা আসন পায় কংগ্রেস। সবটাই ছিল প্রশান্ত কিশোরের বদান্যতায়। তাই আগামী বছরের নির্বাচনের পূর্বে ফের প্রশান্ত কিশোরের তলব পড়েছে পাঞ্জাবে। পশ্চিমবঙ্গ ছেড়ে এবার তিনি পাড়ি দিলেন পাঞ্জাবে।