খারাপ সময়ে কাজে এলো PM CARES ফান্ড, চিকিৎসক-স্বাস্থ্যকর্মীদের টিকা কেনার টাকা দেবে এই তহবিল

অবাক হওয়ার কিছুই নেই, কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে আগেই জানানো হয়েছিল, পিএম কেয়ার ফান্ড থেকে আর্থিক খরচ করা হবে জরুরী সময়ে। কিন্তু এই কথা মানতে নারাজ ছিল বিরোধী রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীরা। তারা বিভিন্ন দিক থেকে প্রশ্নবাণ ছুড়তে থাকে, পিএম কেয়ার ফান্ডের হিসাব, জমার পরিমাণ, আরো বিভিন্ন তথ্য জানতে আগ্রহী তারা। লকডাউন চলাকালীন এই পিএম কেয়ারস ফান্ড গঠন করা হয়েছিল, যার মধ্যে দেশের বিভিন্ন নামিদামি ব্যক্তিরা আর্থিক সাহায্য করেছিল। কিন্তু সেই টাকা নিয়ে কি করতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার সেটা জানতে আগ্রহী ছিল বিরোধীরা। অনেক ক্ষেত্রে আর্থিক তছরুপ করার কথাও বলা হয়েছিল।কিন্তু এই নিয়ে প্রধানমন্ত্রী একটি বার্তাই দিয়েছিল জরুরী সময় খরচ করা হবে অর্থ। কিন্তু তাও যেন বিতর্কের জট কাটতে চাইছিল না।

কিন্তু এবার সেই পিএম কেয়ার ফান্ডের অর্থ খরচ করেই কেনা হতে পারে করোনা ভ্যাকসিন। আগামী 16 জানুয়ারি থেকে ভারতে শুরু হচ্ছে টিকাকরণ পর্ব। আর সেই কারণেই ইতিমধ্যে ভ্যাকসিন কেনা হয়েছে ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারক সংস্থাগুলি থেকে। প্রথম থেকেই বলা হয়েছিল প্রথম সারির কোভিড যোদ্ধাদের ডাক্তার নার্স বিভিন্ন স্বাস্থ্য কর্মীদের টিকা করন করা হবে, যার সংখ্যা ৩ কোটির মতো। এবার এই তিন কোটি মানুষের ভ্যাকসিন কেনা হবে পিএম কেয়ার ফান্ডের থেকে।

ইতিমধ্যে সেরাম ইনস্টিটিউটের তৈরি ভ্যাকসিন কোভিশিল্ড দেশের বিভিন্ন প্রান্তে পৌঁছে গিয়েছে। জানা গেছে প্রথম ১০ কোটি ভ্যাকসিনের ডোজ ২০০ টাকা করে বিক্রি করা হবে,পরে অবশ্য খোলা বাজারের দাম পাঁচ গুণ পর্যন্ত বৃদ্ধি পেতে পারে। তবে আপাতত তিন কোটি স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য ভ্যাকসিন কিনতে সরকারের মোট খরচ হবে ৬০০ কোটি টাকা।