সম্পত্তির হি’সে’ব কি দেবেন পার্থ? আইনজীবীকে প্রশ্ন করলেন বিচারপতি

বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় শিল্পমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কত সম্পত্তি রয়েছে তা হলফনামা আকারে আদালতে পেশ করার নির্দেশ দিয়েছেন। সেই প্রসঙ্গেই শুক্রবারের শুনানিতে তাৎপর্যপূর্ণ মন্তব্য করেছেন বিচারপতি।

পার্থবাবুর নাকি অ্যালসেশিয়ান কুকুর রয়েছে। এবং সেই পোষ্যর জন্য একটি দোতলা ফ্ল্যাটও রয়েছে নাকতলায়। বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায় এদিন পার্থর স্থাবর, অস্থাবর সম্পত্তির হিসেব চেয়েছেন।

সেই সময়েই পার্থর আইনজীবী কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্দেশে বলেছেন,পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সম্পত্তির হিসেব পেশ করা হোক। তাঁর সারমেয়র জন্য যে ফ্ল্যাট আছে, আমার কাছে ঠিকানা আছে। নাকতলায় ফ্ল্যাট আছে, সেটা দোতলা। তার হিসাবও পেশ করা হোক। এর পূর্ণাঙ্গ তদন্ত হোক।

পরে যদিও বিচারপতি বলেছেন, না থাক, হলফনামায় সে সব খরচ আলাদা করে দেখাতে হবে না। অনেকের মতে, বিচারপতি বোঝাতে চেয়েছেন একজন ব্যক্তির কত সম্পত্তি থাকলে পোষ্য অ্যালসেশিয়নের জন্য আলাদা করে দোতলা ফ্ল্যাট রাখতে পারেন।

আরো পড়ুন: এবার বি’রা’ট ধা’ক্কা খেলেন মুখ্যমন্ত্রী, জানুন কারণ

অনেকেরই কুকুর, বেড়াল নিয়ে অন্যরকম ভাললাগা রয়েছে। প্রাক্তন তৃণমূল বিধায়ক তথা অভিনেত্রী দেবশ্রী রায় এ ব্যাপের অবিসংবাদী। যাদবপুরের তৃণমূল সাংসদ তথা অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তীরও কুকুর প্রেম সর্বজনবিদিত। শ্রীলেখা মিত্র কতটা কুকুরের প্রতি স্পর্শকাতর তাও কমবেশি অনেকে জানেন।

কিন্তু পার্থবাবু তাঁর পোষ্যকে এত রাজার হালে রাখেন তা বোধহয় অনেকেরই জানা ছিল না। কয়েক বছর আগে পার্থবাবুর স্ত্রী বাবলি চট্টোপাধ্যায় প্রয়াত হয়েছিলেন। স্ত্রীর নামে একটি ফাউন্ডেশনও তৈরি করেছিলেন পার্থবাবু।

তারা কাজ করত কুকুরদের নিয়ে। পার্থবাবুর ঘনিষ্ঠদের মতে, ওই ফাউন্ডেশনের ব্যাপারটা হয়তো আদালত জানে না। তবে সেই কুকুর প্রেম যে এসএসসি মামলায় জুড়ে যাবে তা বোধহয় জানা ছিল না প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী তথা বর্তমান শিল্পমন্ত্রীর বা তাঁর ঘনিষ্ঠদের।