বড় ধাক্কা, ভারতেও বন্ধ হল অক্সফোর্ডের ক’রোনা টিকার ট্রায়াল

সম্প্রতি, ভারতের করোনা ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারক সংস্থা সেরাম ইনস্টিটিউটের তরফ থেকে জানানো হলো, যতক্ষণ না পর্যন্ত সরকারি নিয়ন্ত্রক সংস্থা ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল অফ ইন্ডিয়ার ছাড়পত্র মিলছে, ততক্ষণ ভারতে অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির করোনা ভ্যাকসিনের ট্রায়াল’ বন্ধ থাকবে। উল্লেখ্য, ব্রিটেনে অক্সফোর্ডের করোনা টিকার ট্রায়ালে অংশগ্রহণকারী এক স্বেচ্ছাসেবকের শরীরে পার্শপতিক্রিয়া ধরা পড়ার পর থেকেই সেখানে টিকা ট্রায়াল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

গত মঙ্গলবার ওই স্বেচ্ছাসেবকের শরীরে প্বার্শপ্রতিক্রিয়া দেখা দেওয়ার পর থেকেই জরুরী ভিত্তিতে ব্রিটেনে অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির আবিষ্কৃত করোনা ভ্যাকসিনের ট্রায়াল’ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয় ওষুধ প্রস্তুতকারক সংস্থা অ্যাস্ট্রোজেনেকা। ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল অফ ইন্ডিয়ার তরফ থেকে জানানো হয়েছে, ট্রায়াল’ এ অংশগ্রহণকারী একজন ব্যক্তির শরীরেও যদি পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়, তাহলে অবিলম্বে ট্রায়াল’ বন্ধ করে দেওয়া উচিত।

ব্রিটেনের স্বেচ্ছাসেবকের শারীরিক পরিস্থিতির খবর প্রকাশ্যে আসতেই গতকাল ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল অফ ইন্ডিয়ার তরফ থেকে অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিনের সুরক্ষার প্রতি প্রশ্ন তুলে সেরাম ইনস্টিটিউটে শোকজ নোটিশ পাঠানো হয়। এরপর সেরাম ইনস্টিটিউটের তরফ থেকে আজ ট্রায়াল’ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করা হয়।

উল্লেখ্য, সেরাম ইনস্টিটিউটের উদ্যোগেই ভারতে অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির আবিষ্কৃত “কোভিশিল্ড” ভ্যাকসিনের ট্রায়াল’ শুরু হয়েছিল। ভারতে “কোভিশিল্ড” এর তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়ালে ২০টি জায়গার ১৬০০ জনের শরীরে ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হয়। অন্যান্য সমস্ত ভ্যাকসিনের তুলনায় ভারতে সবথেকে বেশি আশা প্রদান করছিল “কোভিশিল্ড”।