খুলছে “Love School”, প্রফেসর মটুকনাথ চৌধুরী ছাত্র-ছাত্রীদের শেখাবেন প্রেম করতে হয় কিভাবে

বাইরে অর্থাৎ পাশ্চাত্য দেশে সেক্সএডুকেশন নিয়ে অনেকেই পড়াশোনা করেন, বহু বার বলা সত্ত্বেও আমাদের ভারতবর্ষে সেক্স এডুকেশন নিয়ে কথা বলা যায়না। তবে সেক্স এডুকেশন নিয়ে পড়াশোনা না করলে প্রেম নিয়ে তো পড়াশুনা করা যায়। প্রেম করলে নাকি মন মেজাজ দুটোই ভালো থাকে। তাই লেখাপড়া ,নাচ-গান এগুলো তো অনেক হলো, এবার তরুণ তরুণীদের জন্য প্রেম শেখার ক্লাস চালু করলেন লাভ গুরু মটুকনাথ চৌধুরী।

অধ্যাপক মটুকনাথ চৌধুরী নিজের গ্রামে অর্থাৎ ভাগলপুর জেলায় একটি লাভ স্কুল খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।নিঃসন্দেহে এই স্কুল রীতিমতো ইতিহাস গড়ে ফেলবে বলেই ধারণা করেছেন অনেকে। এই স্কুলের নাম হবে অশো ইন্টারন্যাশনাল স্কুল। এইরকম একটি কথা জানার পর রীতিমতো হতবাক হয়ে গেছেন অনেক মানুষ। মাস্টারমশাই জানিয়েছেন যে, তার তৈরি করা এই স্কুলে ছাত্র-ছাত্রীদের প্রেমের শিক্ষা দেওয়া হবে। শুধুমাত্র প্রেমের শিক্ষা তে আটকে থাকবে না মাস্টারমশাই, প্রেমের পাশাপাশি দেওয়া হবে ভৌতিক, আধ্যাত্বিক এবং আত্মিক বিষয়ক বিভিন্ন শিক্ষা। ইতিমধ্যেই নিজের প্রেমের কাহিনীর কারণে অনেকবার খবরে শিরোনামে উঠে এসেছেন এই মাস্টারমশাই।

শিক্ষক মটুকনাথ চৌধুরী নিজের বয়সের অর্ধেক বয়সের মেয়েদের সঙ্গে বহুবার প্রেমে পড়েছেন, বারবার তাদের সঙ্গে প্রেম করেছেন তিনি।তাই কেহেনা মাস্টারমশাইয়ের স্কুল খোলা নিয়ে যে উত্তাল হয়ে যাবে গোটা দেশ, সেটা জানা কথা।অধ্যাপক মটুকনাথ চৌধুরী পাটনা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিএড কলেজের হিন্দি বিভাগের শিক্ষক ছিলেন। তখন তিনি প্রেম করতেন জুলি বলে একজন মহিলার সঙ্গে। তার এই প্রেম নিয়ে রীতিমতো চর্চা হত গোটা কলেজে।

সম্ভবত এপ্রিল মাসেই নাকি খুলে দেয়া হবে এই বিদ্যালয়। এই প্রসঙ্গে মাস্টারমশাই সকলকে জানিয়েছেন যে, আমাকে সকলে লাভ গুরু বলে, কিন্তু আমি মনে করি না যে আমি মহান লাভ গুরু। আমার সমস্ত শিক্ষা অশোর থেকে নেওয়া। সবকিছুই আমি উনার কাছ থেকে শিখেছি।তাই আমার এই বিদ্যালয়ের নামও ওনার নাম রেখেছি।