মঙ্গলবার সকালে ফের কেঁপে উঠলো উত্তরবঙ্গের বিস্তীর্ণ এলাকা, আতঙ্কের পরিবেশ

পরপর দুইদিন মৃদু ভূকম্পন অনুভূত হলো উত্তরবঙ্গে। গতকাল সন্ধ্যার পর মাঝারি মাত্রার ভূমিকম্পে কেঁপে ওঠে উত্তরবঙ্গ। এরপর ফের আজ সকালে উত্তরবঙ্গের একাধিক জায়গায় ভূ-কম্পন অনুভূত হলো। এদিনের ভূমিকম্পের উৎসস্থল ছিল শিলিগুড়ি। আজ সকাল ৭টা ৭ মিনিট নাগাদ উত্তরবঙ্গের একাধিক জায়গা ভূমিকম্পে কাঁপতে থাকে।

রিখটার স্কেলে এই কম্পন মাত্রা ধরা পড়েছে ৪.১ ম্যানিটিউড। উল্লেখ্য গতকাল রাত ৮টা ৪৯ নাগাদ মাঝারি মাত্রার ভূকম্পন অনুভূত হয় উত্তরবঙ্গে। ন্যাশনাল সেন্টার ফর সিসমোলজি বিভাগের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, গত রাতের ভূমিকম্পের উত্‍সস্থল ছিল নেপাল-সিকিম সীমান্ত। আজ আবার সকালের দিকে জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহারে কম্পন অনুভূত হলো।

যদিও ভূবিজ্ঞানীরা আজকের এই ভূমিকম্পকে গত রাতের ভূমিকম্পের আফটার ইফেক্ট আফটার শক বলে মনে করছেন। প্রসঙ্গত গত রাতের ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল ৫.৪ ম্যানিটিউড। দার্জিলিং, কোচবিহার, জলপাইগুড়ি ও উত্তর দিনাজপুরে ভূকম্পন অনুভূত হয় গত রাতে।পশ্চিমবঙ্গের প্রতিবেশী রাজ্য অসম এবং বিহারেও হালকা কম্পন অনুভব করা গিয়েছে।

ভূমিকম্পের পর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ফোন করে খোঁজখবর নিয়েছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। রাজ্যপাল এদিন টুইট করে জানিয়েছেন, মুখ্যমন্ত্রী এই মুহূর্তে শিলিগুড়িতে রয়েছেন। ভূমিকম্পের আঁচ তার উপর তেমনভাবে পড়েনি জেনে আশ্বস্ত হয়েছেন রাজ্যপাল।