Omicron: শিশুদের দে’হে থা’বা বসাচ্ছে ক’রো’না’র নতুন প্র’জা’তি, স’জা’গ থাকুন

দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনার যে নতুন স্ট্রেইন ধরা পড়েছে তা কার্যত স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের রাতের ঘুম উড়িয়ে দিয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকায় শিশুদের মধ্যে করোনার সংক্রমণ বাড়ছে। এমতাবস্থায় গোটা বিশ্ব শিশুদের উপর ওমিক্রনের প্রভাব নিয়ে আতঙ্কিত। কারণ এই ভাইরাসে বেশিরভাগ শিশুরাই বেশি আক্রান্ত হচ্ছে।

করোনার প্রথম এবং দ্বিতীয় ঢেউয়ের ক্ষেত্রে দেখা গিয়েছিল যে করোনার ক্ষেত্রে অনেক বেশি সুরক্ষিত শিশুরা। কিন্তু হঠাৎ সব সমীকরণ বদলে দিল করোনার এই নতুন স্ট্রেইন। করোনার তৃতীয় ঢেউয়ে শিশুদের করোনা সংক্রমনের সম্ভাবনা বেড়েছে। বিশেষত পাঁচ বছরের কম বয়সী শিশুদের থেকে শুরু করে 15 থেকে 19 বছর বয়সীরা করোনায় আক্রান্ত হচ্ছিলেন। এখন করোনার চতুর্থ ঢেউয়ে সব বয়সী মানুষের দেহে থাবা বসাচ্ছে করোনার নতুন স্ট্রেইন।

বিশেষ করে পাঁচ বছরের কম বয়সীদের বেশি করে আক্রমণের শিকার হতে হচ্ছে। করোনার নতুন ভেরিয়েন্ট শিশুদের জন্য বেশি সংক্রামক। শিশুদের মধ্যে সংক্রমনের মাত্রা বাড়ছে। দেশে সব থেকে বেশি করোনায় আক্রান্ত হচ্ছেন 60 বছরের বেশি বয়সীরা।

এই মুহূর্তে এই দেশ চতুর্থ ঢেউয়ের প্রথম পর্যায়ে রয়েছে। তাই এখনই এই নিয়ে বেশি কিছু মন্তব্য করতে চাইছেন না বিশেষজ্ঞরা। শিশুরা কেন বেশি আক্রান্ত হচ্ছে সেই বিষয়ে পর্যাপ্ত গবেষণার প্রয়োজন রয়েছে বলে মনে করছেন তারা। ইতিমধ্যেই ভারতে তিন জনের শরীরে নতুন ভাইরাসের সংক্রমণ দেখা দিয়েছে। কাজেই এই মহামারী নিয়ে উদ্বিগ্ন রয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।