বাড়ি সুন্দর করে সাজাতে অবশ্যই দরকার আয়না, তবে বাস্তু মতে না লাগালে বিপদে পড়তে সময় লাগবে না

রূপচর্চার ক্ষেত্রে প্রথমেই যা প্রয়োজনীয় তাহলো একটি আয়না। নিজেকে প্রতিদিন সুন্দর করে তোলার প্রক্রিয়াটি কিন্তু আয়নার সহায়তা ছাড়া সম্ভব নয়। কিন্তু জানেন কি, আয়না যেমন আমাদের সুন্দর করে তুলতে সহায়তা করে, ঠিক তেমনই গার্হস্থ্য জীবনের সুন্দরতার পেছনেও কিন্তু আয়নার প্রভূত প্রভাব থাকে? বাড়ির কোন দিকে, কোন দেওয়ালে, কিভাবে আয়না রাখছেন তার ওপর নির্ভর করে আপনার ভাগ্য।

বাস্তুশাস্ত্র মতে গৃহস্থ জীবনের সুখ-শান্তির প্রতিবিম্ব হলো আয়না। সঠিক দিকে আয়না রাখলে তা জীবনে সুখ-শান্তি নিয়ে আসে। নতুবা অভাব-অনটন, দুঃখ-কষ্ট, অনভিপ্রেত দুর্ঘটনার সম্মুখীন হতে হয়। বাস্তু মতে, সংসারের টাকার অভাব, অনটন দূর করতে হলে টাকা রাখার জায়গা ঠিক সামনেই একটি আয়না রাখতে হয়। এতে নাকি সংসারে টাকার বন্যা বয়ে যায়।

তবে বাড়ির মূল দরজার সামনে আয়না রাখা নৈব নৈব চ। বাস্তুমতে, গৃহস্থের ঘরে যে ইতিবাচক শক্তি প্রবেশ করে দরজার সামনে আয়না রাখার ফলে তা প্রতিফলিত হয়ে বাইরে বেরিয়ে যায়। এতে সংসারে নেতিবাচক প্রভাব পড়ে। যার অবশ্যম্ভাবী ফলাফল আর্থিক অনটন, দুর্ঘটনা ইত্যাদি। আবার বাড়িতে কেমন আকারের আয়না রাখছেন তারপরেও অনেকাংশে নির্ভর করে বাস্তু।

গোল কিংবা ডিম্বাকৃতি নয়, আয়তোকার অথবা চতুষ্কোণ বিশিষ্ট আয়না বাড়িতে রাখাই শ্রেয়। পাশাপাশি, মাটি থেকে সর্বদা ৪-৫ ফুট উচ্চতায় আয়না রাখতে হয়। এতে সংসারের শ্রী বৃদ্ধি পায়। শোওয়ার ঘরে আয়না থাকলে সেটিকে এমন ভাবে রাখতে হবে রাতে শোয়ার সময় শরীরের কোন না কোন অংশ তাতে দৃশ্যমান হয়। নতুবা শারীরিক সমস্যা সৃষ্টি হয়। তাই বাড়িতে আয়না রাখার ক্ষেত্রেও বাস্তু মেনে চলার নিদান দেন বাস্তু তন্ত্রবিদেরা।