জঙ্গলে পাওয়া গেলো অসংখ্য স্বাস্থ্যসাথী কার্ড, ব্যাপক চাঞ্চল্য এলাকা জুড়ে

একুশের বিধানসভা নির্বাচনে জেতার জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তূণীর থেকে একের পর এক রামবান বেরোচ্ছে। এর মধ্যে সর্বাধিক চর্চিত পরিকল্পনাটি হলো স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পের উদারীকরণ নীতি। স্রেফ এই স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্পই একুশের বিধানসভা নির্বাচনের মোড় ঘুরিয়ে দিতে পারে বলে অনুমান করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। মমতা বন্দোপাধ্যায়ের দুয়ারে দুয়ারে সরকার প্রকল্পের অন্যতম স্বাস্থ্য সাথী নিয়ে পশ্চিমবঙ্গবাসীর আগ্রহ প্রবল।

কিন্তু সেই স্বাস্থ্য সাথী কার্ডই অনাদরে, অবহেলায় পড়ে রইলো রাস্তার ধারে, জঙ্গলে! ঘটনাটি ঘটেছে নদীয়ার পলাশীপাড়ায়। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানাচ্ছেন রাস্তায়, জঙ্গলে শয়ে শয়ে নতুন স্বাস্থ্য সাথী কার্ড পড়ে রয়েছে। কে বা কারা সেগুলিকে ফেলে গিয়েছে সে সম্পর্কে এখনো কিছু জানা সম্ভব হয়নি। তবে ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। একইসঙ্গে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক তরজা।

এভাবে স্বাস্থ্য সাথী কার্ড রাস্তায় পড়ে থাকার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে তেহট্টো থানার পুলিশ। পুলিশ সেই কার্ডগুলিকে উদ্ধার করেছে বলে জানা গিয়েছে। স্থানীয় সূত্রে খবর, এলাকার একটি অনুষ্ঠান বাড়িতে প্যান্ডেল খোলার কাজ করতে গিয়ে কর্মীরা যখন পাশের জঙ্গলে শৌচ কর্ম করতে যান তখনই তাদের নজরে আসে প্রায় একশোটি স্বাস্থ্য সাথী কার্ড জঙ্গলের মধ্যে পড়ে আছে।

এই খবর জানাজানি হতেই এলাকা জুড়ে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। এরপর পুলিশের হস্তক্ষেপে কার্ড গুলি উদ্ধার করা সম্ভব হয়। ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাজ্য সরকারকেই কাঠ গড়ায় তুলেছেন বিজেপি নেতা রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। তার দাবি, রাজ্য সরকারের স্বাস্থ্য সাথী প্রকল্প আসল একটি ভাওতা। এই স্বাস্থ্য সাথী কার্ডকেই ভোটে জেতার কার্ড হিসেবে ব্যবহার করছে তৃণমূল। ভোটের পরে এই কার্ডের আর কোনো মূল্য থাকবে না।