রাহুল গান্ধীকে দি’য়ে হ’বে না, ক্ষো’ভ প্র’কা’শ ক’রে কংগ্রেস ছাড়লেন বিধায়ক রূপজ্যোতি কুর্মি

২০২১ সালের বিধানসভা ভোটকে কেন্দ্র করে সিপিএম এবং কংগ্রেস জোট বেঁধেছিল সেটা নিয়ে এখনো দলের অন্দরমহলে চলছে দ্বন্দ্ব। সমস্ত নেতারা কংগ্রেসের দল ছেড়ে চলে যাচ্ছেন এইরকম অবস্থাতে হঠাৎই কংগ্রেস ছাড়ার কথা বললেন অসমের বিধায়ক রুপজ্যোতি কুর্মি। তিনি কংগ্রেস দলের বিরুদ্ধে গিয়ে বলেন যে, “কংগ্রেস, যে সমস্ত যুব নেতা রয়েছেন তাদের দাবি দাবা কখনোই তারা শোনেন না।”

তিনি আরো বলেন যে, “কংগ্রেসের যে হাইকমান্ড আর তিনি কখনোই যুবনেতাদের কোন দাবি মানতে চান না, কোন কথা শুনতে চান না,যার জন্যই আজ কংগ্রেস দলের অবস্থা এইখানে এসে পৌঁছেছে। অসমের বিধায়ক রুপজ্যোতি তিনি রাহুল গান্ধীকে সরাসরি কাঠগড়ায় দাড় করান এবং তার সম্পর্কে বলেন যে, “দলের নেতৃত্ব কখনোই রাহুল গান্ধী করতে পারবে না, উনি একজন অসমর্থ লোক। যতদিন পর্যন্ত তিনি কংগ্রেস দলের দায়িত্ব নিয়ে থাকবেন ততদিন পর্যন্ত এই দলের কোনো কিছুই হতে পারবেনা”।

তিনি আরো বলেন যে, “এবারের নির্বাচনে যদি পারতেন তাহলে অবশ্যই কংগ্রেস জয় করতে পারতো। কিন্তু, এই বিষয়টিকে নিয়ে সবসময় উদাসীন ছিলেন হাইকমান্ড। “তিনি আরো অভিযোগ করেন যে, “হাইকমান্ড কখনো যে সমস্ত যুবনেতা রয়েছে তাদের কোন কথা শুনেন না, দলে যুবনেতাদের একটি গুরুত্ব আছে সেই বিষয়ে তিনি কখনোই মানেননি।”

জল্পনা শুরু হয়েছে যে, রুপজ্যোতি কুর্মি হয়তো বিজেপিতে যোগদান করতে পারেন, তবে এই বিষয়ে কোনো রকমে এখনো মাথা ঘামাতে দেখা যায়নি বিজেপিকে। অন্যদিকে কংগ্রেস দলের মধ্যে যুব নেতাদের একটি অসন্তোষ এবং যেটা স্বাভাবিক ছিল কারন, যুব জিতিন প্রসাদ, জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া সকলেই দল ছেড়ে চলে গেছেন এবং বিজেপিতে যোগদান করেছেন।