শ্মশানে নয়, ধাপার মাঠে করোনায় মৃতদের দেহ দাহ হবে, কবর দেওয়া হবে বাগমারিতে

প্রতীক ছবি

গোটা দেশে করোনা আতঙ্ক। বেড়েই চলছে সংক্রমণ। এই পরিস্থিতিতে সারা দেশে লকডাউন ঘোষণা করা হয়। সোমবার পশ্চিমবঙ্গে প্রথম করোনায় আক্রান্ত মৃত ব্যক্তির শবদাহ নিয়ে তুলকালাম ঘটে গিয়েছে নিমতলা শ্মশানে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশকে লাঠিচার্জ পর্যন্ত করতে হয়। এরপর কলকাতা পুরসভা করোনা আক্রান্ত রোগীর মৃতদেহ সৎকার করার জন্য মহানগরের ২ টি জায়গা নির্দিষ্ট করল। করোনায় মৃত রোগীর দাহ করা হবে ধাপায় এবং কবর দেওয়া হবে বাগমারিতে।

কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম বলেন, এরপর করোনায় যদি কারও মৃত্যু হয় তাহলে ধাপায় সৎকার করা হবে এবং কাউকে যদি কবর দিতে হয় তাহলে বাগমারির একটা জায়গা নির্দিষ্ট করা হয়েছে। তার জন্য পৃথক গেট করার ব্যবস্থাও করা হচ্ছে। মানুষ যাতে আতঙ্কিত না হন, তার জন্যই দূরে এই ব্যবস্থা করা হচ্ছে। তবে তিনি আশা রাখছেন, আর কোনও মৃত্যু হবে না। তিনি আরও বলেন, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যেপাধ্যায় হ্যামারিং করে রাজ্য ব্যাপী লকডাউন করেছেন।

শীঘ্রই তার সুফল পাবে মানুষ। সবাইকে আতঙ্কে না থেকে সতর্কে থাকতে হবে। নিমতলা শ্মশান ঘাট এলাকায় প্রথম করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির শেষকৃত্য নিয়ে গন্ডগোল বাঁধে। স্থানীয় মানুষ সৎকার করতে বাধা দেন, বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন। এরপরই মঙ্গলবার জরুরি বৈঠক করে কলকাতা পুরসভা। সেখানেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, করোনায় মৃতদের ধাপা এবং বাগমারিতে শেষকৃত্য করা হবে।