বয়ফ্রেন্ড ছাড়া Valentine’s Day-তে কলেজ আসা যাবে না, নিষেধাজ্ঞা জারি করে নোটিশ

গতবছর মেরিট লিস্টে ছিলো সানি লিওনের নাম। তারপর হঠাৎ করেই জানতে পারা যায় যে, একজন কলেজ প্রার্থীর এডমিট কার্ডে বাবা মায়ের জায়গায় নাম রয়েছে ইমরান হাশমি এবং সানি লিওনের। তবে পরবর্তী সময়ে জানা যায় যে, কোন ভুল ত্রুটির জন্য এরকম নাম ছাপা হয়ে গিয়েছিল। আরো একবার ভুয়ো নোটিশ নিয়ে শোরগোল হয়ে পড়ল নেট দুনিয়া।

আর কিছুদিনের মধ্যেই আসতে চলেছে ভ্যালেন্টাইন্স ডে। এখন থেকেই শুরু হয়ে গেছে তরুণ-তরুণীদের মধ্যে তোড়জোড়। এরই মধ্যে সম্প্রতি আগ্রার সেন্ট জনস কলেজে ছাত্রীদের উদ্দেশ্যে নোটিশ দেওয়া হল, ভ্যালেন্টাইন্স ডের দিন বয়ফ্রেন্ড ছাড়া কলেজে ঢুকতে দেওয়া হবে না।এই নোটিশ প্রকাশ্যে আসার পর রীতিমতো চাঞ্চল্য ছড়িয়ে যায়।

এরকম একটি নোটিশ এর কথা শুনে গোটা কলেজে শোরগোল পড়ে গিয়েছিল। নোটিশটি গ্রহণযোগ্য হবার আরেকটি কারণ ছিল যে, সেখানে কলেজের একাডেমিক অ্যাফেয়ার্স এর অ্যাসোসিয়েট ডিন এর স্বাক্ষর ছিল। নোটিশে বলা হয়েছিল যে, ভ্যালেন্টাইন্স ডের আগে যে কোনোভাবে প্রত্যেক ছাত্রীকে একজন করে বয়ফ্রেন্ড জোগাড় করতে হবে। ছাত্রীদের নিরাপত্তার জন্যই নাকি এই বন্দোবস্ত করেছে কলেজ। যারা বয়ফ্রেন্ড জোগাড় করতে পারবে না তাদের, ভ্যালেন্টাইন্স ডের দিন কলেজে ঢুকতে দেওয়া হবে না।

সপ্তাহখানেক আগে থেকেই প্রত্যেক ছাত্রীকে বয়ফ্রেন্ডের সঙ্গে ছবি সহ প্রমান জমা দিতে হবে কলেজ এর কাছে। নিঃসন্দেহে এমন একটি কথা জানাজানি হওয়ার পর বিশেষত মেয়েদের মধ্যে তুমুল শোরগোল পড়ে যায়। স্বয়ং যোগী আদিত্যনাথের রাজ্যের একটি কলেজে এইরকম একটি নোটিশ কি করে জারি হল, তা নিয়ে বিতর্ক তুলেছেন অনেকেই।

তবে কলেজের পক্ষ থেকে সম্প্রতি জানানো হয়েছে যে, যে নোটিশ নিয়ে এত শোরগোল পড়ে গিয়েছে, সেটি আসলে একটি ভুয়া। এরকম কোন নিয়ম জারি করা হয়নি কলেজের পক্ষ থেকে। স্বাক্ষর এর জায়গায় যে ব্যক্তির নাম রয়েছে, সেই রকম কোন ব্যক্তির অস্তিত্ব নেই কলেজে। পুরো ঘটনাটাই সাজানো। ঘটনা তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে কলেজের পক্ষ থেকে।

এই ঘটনায় সেন্ট জনস কলেজের প্রিন্সিপাল জানান যে, কলেজ কর্তৃপক্ষের নাম করে কয়েকজন কলেজে এইরকম নোটিশ ছড়িয়ে দিয়েছে। সম্পূর্ণ বিষয়টি কর্তৃপক্ষের নজরে এসেছে।যারা ঘটনার সঙ্গে যুক্ত রয়েছে তাদের খুব তাড়াতাড়ি কঠোরতম শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে।কলেজের নাম খারাপ করার জন্য এই রকম কাজ করা হয়েছে। পড়ুয়াদের এই ধরনের নোটিশে সাড়া না দেবার জন্য বলা হয়েছে কলেজের পক্ষ থেকে।