নন্দীগ্রামে মুখ্যমন্ত্রীর উপর হামলা হয়নি, “দুর্ঘটনা”-তে সিলমোহর নির্বাচন কমিশনের

গত বুধবার নন্দীগ্রামে মনোয়নপত্র জমা দিতে গিয়ে আঘাত পান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই আঘাতের পরিপ্রেক্ষিতে বিরোধীদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে মুখ্যমন্ত্রীর ওপর হামলা চালানোর অভিযোগ তোলে শাসক শিবির। এ সম্পর্কে নির্বাচন কমিশনের কাছেও একটি রিপোর্ট পাঠায় রাজ্যের শাসক দল। তবে নির্বাচন কমিশনের তরফ থেকে মুখ্যমন্ত্রীর উপর হামলা চালানোর তত্ত্ব সম্পূর্ণ খারিজ করে দেওয়া হয়েছে।

মুখ্যমন্ত্রীর আঘাত পাওয়ার ঘটনা নিয়ে তদন্ত চালায় নির্বাচন কমিশন। মুখ্যসচিব ও সিইও-র কাছ থেকে রিপোর্ট চেয়ে পাঠানো হয়। পাশাপাশি কমিশনের তরফে রাজ্যের দুইজন পর্যবেক্ষকের মতামত বিবেচনা করেই গত রবিবার নির্বাচন কমিশনের ফুল বেঞ্চের তরফ থেকে আয়োজিত বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয় যে, দুর্ঘটনার দরুণ পায়ে চোট পেয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এইদিনের বৈঠকের পর নির্বাচন কমিশনের তরফ থেকে প্রদত্ত রিপোর্টে জানানো হয়েছে, গত বুধবার মুখ্যমন্ত্রী দুর্ঘটনার দায়ভার নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা কর্মীদের উপরেই বর্তায়। মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা নিরাপত্তাকর্মীরা ওইদিন তাদের দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করেননি। তাই এমন অনভিপ্রেত দুর্ঘটনা ঘটে গিয়েছে।

প্রসঙ্গত, জাতীয় নির্বাচন কমিশনের দুই পর্যবেক্ষক অজয় নায়েক ও বিবেক দুবে নন্দীগ্রামে গিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে গত শনিবার তাদের রিপোর্ট কমিশনের কাছে পেশ করেন। সবদিক বিবেচনা করে শাসক শিবিরের তরফ থেকে আরোপিত মুখ্যমন্ত্রীর উপর হামলার তত্ত্ব কার্যত উড়িয়েই দিয়েছে কমিশন।