নবরূপে Whatsapp, ব্যবহারকারীদের জন্য আসছে দুর্দান্ত ফিচার্স

হোয়াটসঅ্যাপ এবং মেসেঞ্জার আসার ফলে আমাদের মধ্যে মেসেজ করার প্রবণতা অনেকটাই বেড়ে গেছে। আমরা এখন আর ফোন মেসেজ ইউজ করিনা। খুব সহজ এবং খুব কম খরচে আমরা যখন তখন যেখানে সেখানে ভিডিও কল করতে পারি। ঠিক এই কারনে সকলেরই প্রছন্দ হোয়াটসঅ্যাপ। এইবার হোয়াটসঅ্যাপ কে নিত্য নতুন করে তোলার জন্য কোনরকম খামতি রাখছে না এই অ্যাপটি। যেমন এখন কাউকে মেসেজ পাঠানোর পর সেই ব্যক্তি সেই মেসেজটি দেখে নেবার আগে আমরা ডিলিট করে দিতে পারি। এরকম আরো অনেক রকম সুবিধা নিয়ে এসেছে হোয়াটসঅ্যাপ। তাই এবার হোয়াটসঅ্যাপ কি রঙিন বানানোর জন্য হোয়াটস্যাপ এর সমস্ত চ্যাটের ক্ষেত্রে ব্যাকগ্রাউন্ডে একটি করে ওয়ালপেপার রাখা সিদ্ধান্ত নিলো সংস্থার আধিকারিকরা।

আগে যেমন প্রত্যেকটি চ্যাট এর জন্য আলাদা আলাদা করে কোনো রকম ছবি রাখা যেত না। হোয়াটসঅ্যাপ ব্যাকগ্রাউন্ডে একটি ছবি থাকতো, যা প্রত্যেকের ক্ষেত্রেই একই দেখাতো।এবার ভিন্ন চ্যাট বক্স এর জন্য আলাদা আলাদা ওয়ালপেপার সেট করতে পারবেন আপনি।অর্থাৎ কোন মানুষের সঙ্গে আপনি চ্যাট করছেন তা তার ছবি দেখে বুঝতে পারবেন।পছন্দসই মানুষের পছন্দসই ছবি আপনি রাখতে পারবেন নিজের মতো করে।স্বাভাবিকভাবেই এতে হোয়াটসঅ্যাপ ইউজ করতে আরও আগ্রহী হয়ে পড়বেন গ্রাহকরা।শোনা যাচ্ছে ইতিমধ্যেই বিটা ইউজাররা এই ফিচারটা ব্যবহার করতে পারছেন।

পরীক্ষা-নিরীক্ষা সম্পন্ন হলে সকল ইউজারদের কাছে এটি আত্মপ্রকাশ করবে। হোয়াটসঅ্যাপ সেটিং অপশন থেকে এই ফিচারটি দেখতে পাওয়া যাবে। সেখানে ওয়ালপেপার অপশনে গিয়ে একটি ওয়ালপেপার পছন্দ করার পর ইউজারকে জিজ্ঞেস করা হবে, তিনি কি একটি বিশেষ চ্যাট এর ক্ষেত্রে এটি ব্যবহার করতে চান নাকি সব গুলোর ক্ষেত্রে? তখন নিজের মতো করে আপনি। তবে কবে এই ফিচারটি আছে এ ব্যাপারে এখনো পর্যন্ত কিছু জানায়নি হোয়াটসঅ্যাপ।ফিচারটি অ্যান্ড্রয়েড এবং আইওএস উভয় ইউজাররাই ব্যবহার করতে পারেন কিনা তা এখনও স্পষ্ট করে জানায় নি হোয়াটসঅ্যাপ। এখনো পর্যন্ত অ্যান্ড্রয়েড এর বিটা ভার্সন টি এটি ব্যবহার করতে পারছে। এই ফিচারটি ছাড়াও ভ্যাকেশন মোড, অটো আর্কাইভ চ্যাট এর মত ফিচার এর উপর কাজ করছে হোয়াটসঅ্যাপ।