নতুন প্রতারণা, “তুমি আমার বউ”, বিয়ের সার্টিফিকেট জাল করে ৪ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিলো যুবক

একেবারে বিয়ে না করেই বউ হিসেবে মেনে নেওয়া, যুবকের মুখে এই ধরনের কথা শুনে একেবারে আকাশ থেকে পড়েন সেই যুবতী। যুবক তাকে বউ বলে বিবেচনা করে, জাল ম্যারেজ সার্টিফিকেট বানিয়ে অবাক করে দেয় সবাইকে। অথচ সেই যুবকের সাথে সেই মেয়েটির কোনদিন বিয়ের কথা উঠিনি সামান্য চেনা-পরিচিততেই এই কাণ্ড করে বসে যুবক। তবে সেই যুবকের লক্ষ্য ছিল আলাদা বউ হিসেবে মেনে নেওয়াটাই তার শেষ কাজ নয়। যুবতীর কাছ থেকে জাল সার্টিফিকেট দেখিয়ে টাকা আদায় করাই ছিল তার মূল লক্ষ্য। এইসব কাণ্ডের আগেই প্রায় ৫ লাখ টাকার মতন হাতিয়েছে সেই যুবক, যুবতীর কাছ থেকে। কিন্তু আরো টাকা দাবি করে সেই যুবক, দিনের পর দিন এই অত্যাচার সহ্য না করে ফের পুলিশের দ্বারস্থ হয় যুবতী। উল্টোডাঙ্গা থানায় গিয়ে যুবকের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করে যুবতী। এরপরেই পুলিশের তরফ থেকে যুবকের বিরুদ্ধে জালিয়াতি ও প্রতারণার তদন্ত শুরু হয়।

পুলিশ সূত্রে আরো স্পষ্ট জানা যায়,আসলে বাবার অসুস্থতার কারণে যুবতী তাদের ওষুধের দোকান চালায় আরিফ রোডে। আর সেই দোকানে ওষুধ কিনতে আসে সেই যুবক, আর তাদের মধ্যে গড়ে ওঠে পরিচয়, খড়দহের যুবকের সাথে। এর পরেই তাদের মধ্যে সম্পর্ক তৈরি হয় বন্ধুত্বের, ধীরে ধীরে সেই বন্ধুত্ব আরো বেশি নিবিড় হয়ে ওঠে। এই অছিলায় বিভিন্ন চালানে সই করিয়ে নেয় সেই যুবক। ধীরে ধীরে যুবতীর কাছে তার মা বাবার অসুস্থতার কথা জানিয়ে একের পর এক টাকা ধার নেয়। কখনো নগদ কখনো চেকের মাধ্যমে বা কখনো নেট ব্যাংকিং এর মাধ্যমে।

কিন্তু দিন পেরিয়ে গেলে যুবতী তাগাদা শুরু করে, আর তার ঠিক পরেই যুবক তার আসল রূপে ফিরে আসে। যুবক তখন জানায় কেন সে টাকা ফেরত দেবে? কারণ যুবতী যে তার স্ত্রী। আর এই কথা শোনার পরে একেবারে আকাশ ভেঙে পড়ে যুবতীর মাথায়।কারণ তারা কোনদিন বিয়েই করেনি এর পরেই জাল ম্যারেজ সার্টিফিকেট বের করে যুবক এবং প্রমাণ করতে চায় যে তাদের বিয়ে হয়েছে।কিন্তু শেষ পর্যন্ত যখন আরো টাকা চাইতে থাকে সেই যুবক ধৈর্যের সীমা ভেঙে গিয়ে পুলিশের দ্বারস্থ হয় যুবতী।