নতুন শিক্ষানীতি এখনই চালু হচ্ছে না রাজ্যে, সাফ জানিয়ে দিলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়

রাজ্যে এখনই চালু হচ্ছে না কেন্দ্রের প্রচলিত নতুন শিক্ষানীতি। নতুন শিক্ষানীতি চালু প্রসঙ্গে আলোচনা করার জন্য সোমবার কেন্দ্রের সাথে ভার্চুয়াল বৈঠকে অংশগ্রহণ করেছিলেন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। বৈঠকের পর পার্থ চট্টোপাধ্যায় সংবাদমাধ্যমে জানিয়ে দেন, রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনাই এখন মূল লক্ষ্য রাজ্য সরকারের। তাই আপাতত, নতুন শিক্ষানীতি চালু হচ্ছে না রাজ্যে।

উল্লেখ্য, নতুন শিক্ষানীতি ২০২০ প্রসঙ্গে সোমবার প্রতিটি রাজ্যের রাজ্যপাল এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের সাথে ভার্চুয়াল বৈঠকের আয়োজন করেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বক্তব্য দিয়ে এই ভার্চুয়াল বৈঠক শুরু হয়। এরপর শিক্ষা ক্ষেত্রের সাথে জড়িত অন্যান্যরা একে একে নতুন শিক্ষানীতি প্রসঙ্গে নিজেদের মতামত প্রকাশ করেন। সবার শেষে মাত্র তিন মিনিটের জন্যবক্তব্য রাখার সুযোগ পেয়েছিলেন বাংলার শিক্ষা মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

রাজ্যের বক্তব্য, রাজ্যে নতুন শিক্ষানীতি চালু করার জন্য যে পরিকাঠামো প্রয়োজন, তার জন্য আর্থিক সংস্থান কোথা থেকে হবে সে সম্পর্কে স্পষ্ট করে কিছু জানায়নি কেন্দ্র। নতুন পরিকাঠামো গড়ে তোলার জন্য যে খরচ হবে তাতে কেন্দ্র এবং রাজ্যের কতখানি অংশীদারিত্ব থাকবে, সে সম্পর্কে ধোঁয়াশায় রয়েছে রাজ্য। তাই এদিনের বৈঠকে রাজ্যের তরফ থেকে সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, রাজ্যে এখনই নতুন শিক্ষানীতি চালু করা সম্ভব নয়।

কেন্দ্রের প্রচলিত নতুন শিক্ষানীতি অনুযায়ী ধ্রুপদী ভাষার তালিকা থেকে বাংলা ভাষাকে বাদ দেওয়া হয়েছে। এই দিনের বৈঠকে, কেন্দ্রীয় সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বাংলা শিক্ষা মন্ত্রী বাংলা ভাষাকে তালিকায় ঠাঁই দেওয়ার আবেদন জানিয়েছেন। এ প্রসঙ্গে কেন্দ্রের কাছে লিখিত আবেদনও দিয়েছেন তিনি। তবে, কেন্দ্রের তরফ থেকে কোনো ইতিবাচক প্রতিক্রিয়া পাননি বলেই সংবাদমাধ্যমের কাছে অভিযোগ করেছেন শিক্ষা মন্ত্রী। শিক্ষামন্ত্রীর দাবি, দেশের শিক্ষা ব্যবস্থায় বাণিজ্যিকীকরণ করতে চাইছে কেন্দ্র।