নেতাজির ১২৫-তম জন্মজয়ন্তী বর্ষ পালন হবে দেশনায়ক দিবস হিসেবে, বিভিন্ন পরিকল্পনা মুখ্যমন্ত্রীর

কেন্দ্র-রাজ্য এখন আদায়-কাঁচকলায়, দুই পক্ষের এখন একে অপরকে ভুল প্রমাণ করাটাই প্রধান কাজ। সামনেই একুশে বিধানসভা নির্বাচন, তার জন্য দুই রাজনৈতিক দল দারুণভাবে প্রস্তুতি নিচ্ছে বাংলায়। কিন্তু শুধু সেই প্রস্তুতি নয়, চলতি মাসে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর 125 তম জন্ম শতবার্ষিকী, এখানে এই মহান ব্যক্তিকে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন করতেই দুই দলের প্রতিযোগিতা। মানতেই হবে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু বাঙালির আবেগ, এই আবেগ নিয়েই দুই দলের কর্মসূচি। কেন্দ্র এবার বিশেষভাবেই বাঙালির আবেগ কিছুতে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর জন্ম জয়ন্তী উপলক্ষে সারাবছর একগুচ্ছ কর্মসূচি করার পরিকল্পনা করেছে।

কিন্তু পিছিয়ে নেই রাজ্য সরকারও, কেন্দ্রকে টক্কর দিয়ে তারাও একের পর এক প্রকল্প পরিকল্পনা করে রেখেছে। এই 23 শে জানুয়ারি দেশনায়ক দিবস হিসেবে পালন করা হবে বলে জানিয়েছে রাজ্য সরকার, তাছাড়া মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রথম থেকেই নেতাজি সুভাষচন্দ্রের জন্মদিন, জাতীয় ছুটি বলে ঘোষণা করার দাবি জানিয়েছে। জানা গেছে, একেবারে শ্যামবাজার পাঁচ মাথার মোড়ে নেতাজির মূর্তির পাদদেশে থেকে শোভাযাত্রা শুরু হবে এবং সেটা গিয়ে শেষ হবে রেড রোডে। এই শুভ যাত্রার নেতৃত্বে থাকবে স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।সেদিন সকাল ন’টার সাইরেন বাজবে সারা রাজ্যে এবং সেই সাইরেন ধোনির পরেই শুরু হবে শোভাযাত্রা রেড রোড পর্যন্ত। এরপরেই নেতাজী সুভাষ চন্দ্রের মূর্তিতে সম্মান জ্ঞাপন অনুষ্ঠান।

এখানেই শেষ নয় সবই তো কর্মসূচি শুরু,মুখ্যমন্ত্রীর জানিয়েছেন 12 টা 15 মিনিটে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর জন্ম,আর সেই কারণেই সারা রাজ্য জুড়ে বাঁচবে সাইরেন। যাতে সমস্ত রাজ্যবাসী সমস্ত দেশবাসীর এমনকি সারা বিশ্বের মানুষ তার কর্মকাণ্ডের সাক্ষী থাকে। ঠিক সেই সময়ই মুখ্যমন্ত্রী রাজ্যবাসীকে উলুধ্বনি শঙ্খ ধ্বনি বাজিয়ে সম্মান জ্ঞাপন করতে বলেছেন। মুসলিমদের সেইসময় আযান দেওয়ার অনুমতি দিয়েছেন তিনি নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর সম্মানার্থে।সামনে বিধানসভা নির্বাচন এবং বাঙালির এই আবেগটি ঘিরে বিভিন্ন গুচ্ছ গুচ্ছ কর্মসূচি ঘোষণা করলেন নবান্ন থেকে।

23 শে জানুয়ারি দেশনায়ক দিবস হিসেবে ঘোষণা করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিকে স্কুলে স্কুলে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান তৈরি করা হবে ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে আজাদহীন বাহিনী। সাগামি বিভিন্ন কর্মসূচি নিয়ে সেদিন রাজ্যের বিভিন্ন মন্ত্রীর সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠক করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 125 তম জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে এ নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুকে উপযুক্ত সম্মান দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি এখনও স্পষ্ট কিছু না বললেও বিভিন্ন কর্মসূচির ইঙ্গিত দিয়েছেন। আগামীতে এই রাজ্যের নেতাজি সুভাষচন্দ্র জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজ শুরু করবেন তিনি এমনটাও জানা গেছে।