মাদক কাণ্ডে নজরে দুই বলি সুন্দরী, সারা ও শ্রদ্ধাকে সমন পাঠাতে তৎপর NCB

সুশান্ত সিং রাজপুতের মামলায় জড়িত মূল অভিযুক্ত রিয়া চক্রবর্তী এবং তার ভাই সৌভিক চক্রবর্তী কে মাদক চক্রে জড়িত থাকার কারণে সম্প্রতি গ্রেপ্তার করেছেন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা।আপাতত রিয়া চক্রবর্তী বাই কুল্লা জেলে পুলিশের অধীনে রয়েছেন।বারবার জামিনের জন্য আবেদন করার পরেও খারিজ হয়ে যায় রিয়া চক্রবর্তী এবং সৌভিক চক্রবর্তীর জামিনের আবেদন। সম্প্রতি রিয়া চক্রবর্তী কে একটানা জেরা করার পর তার কাছ থেকে পাওয়া কাছে কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য। নারকোটিস কন্ট্রিবিউটর আধিকারিকদের কাছে রিয়া চক্রবর্তী স্বীকার করেন যে, বলিউড ইন্ডাস্ট্রি র কিছু নামী দামী ব্যক্তিত্ব মাদক পাচারের সঙ্গে জড়িত রয়েছেন। তবে কোন কোন অভিনেতা অভিনেত্রীদের নাম রিয়া চক্রবর্তী প্রকাশ্যে এনেছেন, সেটা এখনও জানা না গেলেও বলিউডের নবাব কন্যা সারা আলি খান এর কথা প্রাথমিকভাবে জানা গেছে।

সারা আলি খান কে খুব শিগগিরই কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা ডেকে পাঠাতে পারেন।তবে শুধুমাত্র সারা আলি খান নয়, রকুল প্রীত, সিমন খাম্বা টার নাম উঠেছে সামনে। সূত্রের খবর অনুযায়ী, রিয়া চক্রবর্তী এনসিবি কে জানিয়েছেন যে, সারা আলি খান শহর এই দুজন অভিনেত্রী মাদক নিয়মিত নিতেন। এনসিবি কে দেবা কুড়ি পাতার একটি লম্বা বিবৃতিতে এই অভিনেত্রীর নাম বিশেষভাবে উল্লেখ করেছেন রিয়া চক্রবর্তী।এই তিনজন অভিনেত্রী ছাড়াও সুশান্তের শেষ সিনেমার পরিচালক মুকেশ ছব্রা, রাকুল প্রীত সিং, রহিনি লায়র, এমন আরও বেশ কয়েকজন নামিদামি বলিউড অভিনেতাদের নাম সামনে এসেছে। তাদের প্রত্যেককেই এক এক করে এনসিবি জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকে পাঠাবেন বলে জানা গেছে।

তবে এনসিবির সামনে রিয়া চক্রবর্তী বলিউডের আর কোন কোন নামিদামি ব্যক্তিত্বের কথা সামনে এনেছেন, তা এখনো পর্যন্ত জানা যায় নি। সম্প্রতি এনসিবি সূত্রে পাওয়া গেছে আরেকটি চাঞ্চল্যকর তথ্য মা সন্ধ্যা চক্রবর্তীর ফোন থেকে রিয়া চক্রবর্তী মাদক সংক্রান্ত কথাবার্তা চালাতেন সকলের সাথে। এনসিবি সূত্রে জানা গিয়েছে যে, ইডির কাছে মায়ের ফোনটি জমা দেন নি রিয়া।পরে রিয়ার বাড়িতে তল্লাশি চালাতে গিয়ে এই ফোনটি বাজেয়াপ্ত করে এনসিবি। সেই ফোনের হোয়াটসঅ্যাপ থেকে জানা যায় যে একা