রাজনীতি নিয়ে ভাবি নি, তবে আমার মূল উদ্দেশ্য মানুষের পাশে দাঁড়ানো, জানালেন সোনু সুদ

গত বছর পর্যন্ত তাকে খুব একটা মানুষ চিনতো না। তবে চলতি বছরের মহামারী মানুষকে শিখিয়ে দিয়েছে যে, শুধুমাত্র সিনেমার পর্দায় যারা ভালো সাজার অভিনয় করে, তারা বোধহয় শুধু অভিনয় করেন। মানুষের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা তাদের মধ্যে নেই। যাদের আমরা অবহেলায় দূরে সরিয়ে রাখি, সেই মানুষেরাই সঠিক সময়ে আমাদের পাশে এসে দাঁড়ায়। চলতি বছরে এমন অনেক কিছু আমাদের শিখিয়ে দিয়েছে। তাই যখন মহামারীর প্রাক্কালে অসহায় মানুষের আর্তনাদ করছে, ঠিক তখনই তাদের কে বাঁচানোর জন্য তাদের পাশে এসে দাঁড়িয়ে ছিলেন অভিনেতা সনু সুদ।

শুধুমাত্র পরিযায়ী শ্রমিক দের বাড়ি ফেরা নয়, তরুণ-তরুণীদের পড়াশোনার দায়িত্ব নিয়েছিলেন তিনি। আবাল-বৃদ্ধ-বনিতা সকলের পাশে সাহায্যের হাত নিয়ে দাঁড়িয়ে ছিলেন তিনি। কোন বিপদে পড়লে সকলে বিনা দ্বিধায় তাকে সাহায্যের জন্য ডাকতে একবারও ভাবেনি। কিছুদিন আগে একটি কার্টুন চরিত্রে সনু সুদ কে দেখা যায়, সেখানে কোনো একজন ব্যক্তি সনু সুদ কে যখন জিজ্ঞাসা করে আপনি জানেন কতজন পরিযায়ী শ্রমিক দের মৃত্যু হয়েছে? তখন তিনি বলেন যে না আমি জানি না কারন আমি তখন তাদের বাঁচানোর জন্য ব্যস্ত ছিলাম।

সম্প্রতি আরও একটি জল্পনা-কল্পনা তৈরি হয়েছে সনু সুদ এর কার্যকলাপ নিয়ে। তাহলে সাধারন মানুষকে সাহায্য করার আসল উদ্দেশ্য কি শুধুমাত্র রাজনীতিতে প্রবেশ করা? এই প্রশ্নের উত্তরে সনু আবারও বলেন যে, আমি যদি রাজনীতিতে যোগ দিই, তাহলে আমি আমার সম্পূর্ণ পরিশ্রম তাতে দেব। আমি দেখব যাতে কোনো মানুষ সমস্যায় না থাকেন। তবে এটা আমার রাজনীতি করার সময় নয়। আমি মানুষকে সাহায্য করার জন্য কারো কাছে জবাবদিহি দিতে বাধ্য নই।

ইতিমধ্যেই শুটিং ফ্লোরে ফিরে গেছেন সনু সুদ।সেখানে কলাকুশলীরা হাততালি দিয়ে তাকে স্বাগত জানিয়েছিলেন। রাষ্ট্রসঙ্ঘের বিশেষ পুরস্কার পেয়েছেন তিনি। তার কাজে তিনি প্রমাণ করে দিয়েছেন তিনি বাস্তবের একজন হিরো। তবে তিনি এও জানিয়েছেন যে, এই কাজটা দেখা করা সম্ভব ছিল না। তার পাশে ছিলেন তার বন্ধু নীতি গোয়েল। প্রথমে তারা ধীরে ধীরে বাড়িয়েছিলেন সাহায্যের হাত। যখন কাজ শুরু করেছিলেন তারা, তখন একজন ব্যক্তি স্পন্সর করতে রাজি হয়েছিলেন। অন্য একজন ব্যক্তি পুরো বাসের দায়িত্ব নিলেন। এইভাবেই আস্তে আস্তে মানুষের পাশে নির্দ্বিধায় সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছিলেন সনু সুদ।

তাই নিন্দুকদের উদ্দেশে তিনি একটা কথাই বলতে চেয়ে ছিলেন, নিন্দা না করে সেই সময়টা মানুষের পাশে দাঁড়াতে চেষ্টা করুন। চেষ্টা করুন যাতে একজন মানুষ আপনার দ্বারা উপকৃত হয়। এমতাবস্থায় অনেকদিন পর শুটিং ফ্লোরে ফিরে গিয়ে খুবই উচ্ছ্বসিত সনু সুদ। তারে ছবিতে পার্শ্বচরিত্র অথবা খলনায়কের চরিত্রে আর তাকে দেখা যাবে না। তাকে দেখা যাবে এবার একটু অন্য ভূমিকায়। দেখা যাক বড়পর্দায় সনু সুদ কি চমক দিতে চলেছেন।