আমার প্রাক্তণ খুবই হ্যান্ডসাম, তাইতো কাউকে আর মনে ধরেনি, একরাশ হতাশা নিয়ে পোস্ট শ্রীলেখার

আজ অর্থাৎ ২০শে নভেম্বর, ১৭ বছর আগে আজকের দিনেই টলিউডের অ্যাসিস্ট্যান্ট ডিরেক্টর শিলাদিত্য সান্যালের সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধেন টলিউডে প্রখ্যাত অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র। তবে সম্পর্কে বাঁধা থাকেননি দুজনে। বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটেছে বহু আগেই। কিন্তু, বিবাহ বার্ষিকী বলে কথা! মনে তো পড়বেই। তাই অতীত দিনের সমস্ত তিক্ততা ভুলে আজকের এই বিশেষ দিনে ১৭ বছর পূর্বেকার সেইদিনের দুটি বিশেষ মুহূর্তের ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন শ্রীলেখা মিত্র।

উল্লেখ্য, সিনে জগতের তারকার কিন্তু নিজেদের সম্পর্ক ভাঙ্গনের তথ্য গোপন রাখতেই পছন্দ করেন। তাই “এক্স” তথা প্রাক্তনের সম্পর্কে যতই সংবেদনশীলতা থাক না কেন, তা কখনোই প্রকাশ্যে অনুরাগীদের সঙ্গে ভাগ করে নেন না। ব্যতিক্রমী শ্রীলেখা মিত্র। কোনো রকম রাখঢাক না করেই সোশ্যাল মিডিয়ায় বিবাহ বার্ষিকীর দিনটি নিজের মতো করেই উদযাপন করলেন তিনি।


বিবাহ বিচ্ছেদের পর আবার নতুন করে সংসার গড়লেন না কেন? এতদিন সিঙ্গেল কেন রইলেন এই টলিউড সুন্দরী? তার জবাবও ক্যাপশনেই দিয়ে দিয়েছেন অভিনেত্রী। জানিয়েছেন, তার কাছে তার প্রাক্তন স্বামীই বিশ্বের সর্বাপেক্ষা সুন্দর পুরুষ। তাই আর নতুন করে কেউ এই টলিউড সুন্দরীর মন জয় করতে পারেননি। কোনোরকম তিক্ততা নয়, বিবাহ বার্ষিকীর দিনে বরং প্রাক্তন স্বামীর রূপের প্রশংসায় পঞ্চমুখ শ্রীলেখা মিত্র।

পাশাপাশি নেটিজেনদের উদ্দেশ্যেই আগাম সতর্কবার্তা জারি করে রেখেছেন অভিনেত্রী। লিখেছেন, এই পোস্টে কোনো দুঃখের ইমোজি এলে অথবা কেউ বিবাহ বার্ষিকীর শুভেচ্ছা পাঠালে তাকে তৎক্ষণাৎ নিজের ফ্রেন্ড লিস্ট থেকে বিতাড়ন করে দিতেও দ্বিধাবোধ করবেন না তিনি। ভেঙে যাওয়া সম্পর্ক নিয়েও কিন্তু বেশ ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি রয়েছে তার। তার মতে, দুজন খুব ভালো বন্ধুও কখনো চিরকাল একসঙ্গে থাকতে পারেন না। শিলাদিত্য-শ্রীলেখার জুটি ভেঙ্গেছে ঠিকই, কিন্তু এখনো একে অন্যের ভালো বন্ধু হয়ে রয়েছেন তারা।