একাধিক বিয়ে, পরকীয়া! আপনি কি গাঁ’জা খেয়ে গ’ল্প লেখেন? লেখিকা লীনা গাঙ্গুলি ট্রো’লে’র শি’কা’র

বাঙালি দর্শকদের কাছে বাংলা বিনোদন জগতের অন্যতম আকর্ষণ হল সিরিয়াল। এমন অনেক বাড়ি আছে যেখানে সন্ধ্যা হওয়ার সাথে সাথেই আরও হাজারটা কাজ থাকলেও সব বন্ধ করে টিভির সামনে বসে পড়ে। কিছু সিরিয়ালে যৌথ পরিবারের কাহিনী দেখানো হয়, আবার কিছু সিরিয়ালে প্রেমের জন্য যুদ্ধ চলে। তবে বেশিরভাগ সিরিয়ালেই কিছু জিনিস একই। যেমন প্রায় প্রতিটা সিরিয়ালেই দেখা যায় একাধিক বিয়ে বা বিয়ের পরে প’র’কী’য়া। বাংলার এই সিরিয়ালের মধ্যে বেশ কিছু মেগা সিরিয়ালের চিত্রনাট্য লেখেন লেখিকা লীনা গাঙ্গুলী।

লেখিকা টেলিভিশনের একের পর এক জনপ্রিয় ধারাবাহিকের, যেমন- শ্রীময়ী, খড়কুটো, দেশের মাটি থেকে শুরু করে ধূলোকণা সিরিয়ালটির গল্প লিখেছেন। কিন্তু নেটপাড়ায় একাধিক নেটিজেনরা দাবি জানিয়েছেন যে সব সিরিয়ালেই একই গল্প। এই নিয়ে নেটপাড়ায় ট্রোলিং শুরু হয়েছে। এমনকি লেখিকাকে মাঝে মধ্যেই কটাক্ষের শিকার হতে হয়। সম্প্রতি লীনা গাঙ্গুলিকে নিয়ে একটি মিম বেশ ভাইরাল হল সোশ্যাল মিডিয়ায়।

‘হুগলি মিমস’ নামের একটি ফেসবুক পেজ থেকে শেয়ার করা হয়েছে একটি মিম। যেখানে লীনা গাঙ্গুলির ছবির সাথে লেখা রয়েছে, ‘ওভাবে হাঁ করে কি দেখছিস? আমিই সেই অস্কার জয়ী লেখিকা, যে সস্তার গাঁজা খেয়ে গল্প লিখি, একটা হিরোর দুটো বউ, একটা বউয়ের চারটে বর, একটা বুড়ির পাঁচটা প্রেমিক, এই সবই আমার লেখা।’

ছবিটি শেয়ার হওয়ার সাথে সাথেই ব্যাপক মাত্রায় ভাইরাল হয়। তার জেড়ে সোশ্যাল মিডিয়াতে শুরু হয়েছে চরম হাসাহাসি ও ব্যাপক সমালোচনা। অবশ্য এ বিষয়ে কোনো মাথাব্যাথাই নেই লেখিকার। কারণ ফেসবুকে তাঁর নেই কোনো অ্যাকাউন্ট।কিছুদিন আগে এক সাক্ষাৎকারে লেখিকা স্পষ্ট জানিয়েছেন, “আসলে মতামতের ওপর তো আর টিআরপি নির্ভর করে না, আর এসব ট্রোলিং-এর কোনো গুরুত্বই নেই আমার কাছে। তাছাড়া এরা কেউই আমার সচেতন দর্শক নন।” সুতরাং নেটনাগরিকদের নিয়ে লেখিকা লীনা গাঙ্গুলি যে বিন্দুমাত্র আগ্রহী নন তা তার বক্তব্যের মাধ্যমেই স্পষ্ট হয়ে উঠেছে।