হ্যাকারদের নজরে প্রধানমন্ত্রী, হ্যাক হয়ে গেল মোদীর নিজস্ব ওয়েবসাইটের টুইটার অ্যাকাউন্ট

সম্প্রতি, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির টুইটার একাউন্টে হানা দিল হ্যাকাররা। কেন্দ্রীয় দপ্তর সূত্রে খবর, বেশ কিছুক্ষণের জন্য এক হয়ে যায় প্রধানমন্ত্রীর একাউন্ট। হ্যাকাররা নিজেদের জন উইক গ্রুপের সদস্য বলে দাবি করেছে। হ্যাকাররা, প্রধানমন্ত্রীর অ্যাকাউন্টে পিএম রিলিফ ফান্ডের জন্য জনসাধারণের কাছ থেকে অনুদান চেয়েছে। করোনা পরিস্থিতি সামলাতে তারা ক্রিপ্টোকারেন্সি দাবি করেছে।

বিষয়টি কর্তৃপক্ষের নজরে আসতেই ওই টুইটটি ডিলিট করে দেওয়া হয়। টুইটারের একাধিক পোস্ট করে প্রধানমন্ত্রীর তরফ থেকে হ্যাকাররা লিখেছে, করোনা পরিস্থিতিতে প্রধানমন্ত্রীর পিএম রিলিফ ন্যাশনাল ফান্ডে মুক্ত হস্তে অনুদান দেওয়ার জন্য, আপনাদের সবাইকে অনুরোধ জানাচ্ছি। শুধু তাই নয়, জনসাধারণকে বিটকয়েন বা ক্রিপ্টোকারেন্সির মাধ্যমে ডিজিটাল মাধ্যমে অনুদান দেওয়ার আবেদন করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রীর এই টুইটার একাউন্টটি তার ব্যক্তিগত ওয়েবসাইটের সাথে জড়িত। এখানে প্রায় আড়াই লক্ষ ফলোয়ার্স রয়েছে তার। প্রথমদিকে কেউ কিছু বুঝতে না পারলেও, এসংক্রান্ত একাধিক টুইট দেখে সকলেই বুঝতে পারেন, প্রধানমন্ত্রীর টুইটার একাউন্টটিকে হ্যাক করা হয়েছে। তাছাড়া পরে আবার, হ্যাকারদের গ্রুপের তরফ থেকে ঘোষণা করা হয়, এই অ্যাকাউন্টটিকে জন উইক গ্রুপ হ্যাক করেছে।

হ্যাকার সংস্থাটির নিজস্ব ওয়েব সাইট হলো, hckindia@tutanota.com। এর আগে একবার এই সংস্থার বিরুদ্ধে পেটিএম মল হ্যাক করার অভিযোগ উঠেছিল। এদিন একটি টুইট করে হ্যাকার সংস্থাটি ঘোষণা করে, তারা পেটিএম মল হ্যাক করেনি। ভারতেই প্রথম নয়, এর আগে ওয়ার্ন বাফেট, জেফ বেজোস, বারাক ওবামা, জো বিডেন, বিল গেটসের অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে ক্রিপ্টোকারেন্সি সংক্রান্ত টুইট পোস্ট করে হ্যাকাররা। যার ফলে, উবের ও অ্যাপলের কর্পোরেট অ্যাকাউন্টগুলি ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

সব খবর সরাসরি পড়তে আমাদের WhatsApp  Telegram  Facebook Group যুক্ত হতে ক্লিক করুন