মোদি-শাহকে শোকজ ক’রা দরকার, আলাপন বি’ত’র্কে অভিষেক

রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্য সচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে কেন্দ্র করে ক্রমশ জল ঘোলা হয়েই চলেছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নির্দেশ উপেক্ষা করে দিল্লিতে নর্থ ব্লকের কেন্দ্রীয় সরকারের তরফ থেকে ডাকা বৈঠকে অনুপস্থিত থাকা নিয়ে শেষমেষ বাংলার মুখ্যমন্ত্রীর মুখ্য উপদেষ্টা আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে ‌ শোকজ করলো কেন্দ্রীয় সরকার।

আর এতেই কার্যত কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে মুখ খুললেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় বিরুদ্ধে কেন্দ্রীয় সরকারের এমন পদক্ষেপের বিরুদ্ধে কথা বলতে গিয়ে অভিযোগ পাল্টা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এবং কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহকে শোকজ করার দাবি তুললেন। অভিষেকের দাবি, আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বেই রাজ্যের মানুষের জন্য কাজ করছিল সরকার। আর তাকেই কিনা শোকজ করা হলো?

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বিপর্যয় মোকাবিলা প্রসঙ্গ নিয়ে আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে শোকজ করেছে কেন্দ্র। এই প্রসঙ্গে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের দাবি, বিপর্যয় মোকাবিলা প্রসঙ্গে যদি আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়কে শোকজ করা হয় তাহলে করোনাকালে রাজ্যে বারংবার ভোটের প্রচার চালিয়ে রাজ্যবাসীকে বিপদের মুখে ফেলার জন্য ‌ প্রধানমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকেও শোকজ করা উচিত।

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের এদিন বলেন, দিল্লি থেকে নেতারা এসে প্রায় ৫০ হাজার মানুষ নিয়ে রোড শো করেছেন। তখন কেন তাদের বিরুদ্ধে বিপর্যয় মোকাবিলা আইন প্রয়োগ করা হলো না? করোনার প্রাদুর্ভাব যখন বাড়ছে তখন প্রধানমন্ত্রী রাজ্যে এসে বলছেন, “এত মানুষ আগে দেখিনি, এতজনকে একসঙ্গে দেখে ভালো লাগছে”! এর থেকে দুর্ভাগ্যজনক আর কি হতে পারে? প্রশ্ন তুলেছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।