“চার দফায় ভোটদান, তৃণমূল খা’ন’খা’ন”, তৃণমূলকে উ’ৎখা’তে’র ডাক মোদির

পঞ্চম দফার ভোটের দিন এই প্রচারের উদ্দেশ্যে ফের বাংলা সফরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। শনিবার আসানসোলের নিঘারে বিজেপির তরফ থেকে আয়োজিত প্রচার সভায় অংশগ্রহণ করেন তিনি। তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে এদিনের প্রচার সভা থেকে রীতিমতো তুলোধোনা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। বিজেপির জয় হোক তৃণমূলের পরাজয়ের সম্পর্কে একেবারে নিশ্চিত প্রধানমন্ত্রী।

এদিন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “চার দফা ভোটদান, তৃণমূল খানখান”। তার বিশ্বাস গত চার দফার ভোটে তৃণমূলের ভাগ্য নির্ধারণ হয়ে গিয়েছে। পাশাপাশি আসানসোলের মতো কয়লাঞ্চলে চলতে থাকা মাফিয়া রাজ এবং কয়লা পাচার প্রসঙ্গেও তৃণমূলকে এক হাত নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

আসানসোলের ভোটারদের উদ্দেশ্যে তার বার্তা, আপনাদের একটা ভোট দান, আসানসোলকে মাফিয়া রাজ থেকে মুক্ত করতে পারে। একইসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ করে তার বক্তব্য, বাংলার উন্নয়নের পথে বাধা হয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই উন্নয়ন আটকে দেওয়া সরকার বাংলার মানুষ আর চায়না।

প্রধানমন্ত্রীর অভিযোগ, করোনা বৈঠক থেকে আরম্ভ করে নীতি আয়োগের বৈঠক সবেতেই দেশের প্রতিটি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরা অংশগ্রহণ করেন। একমাত্র “দিদি” আসেন না। বাংলার মানুষের জন্য ভাবার সময় নেই তার। উনি নিজেকে সংবিধানের ঊর্ধ্বে বলে মনে করছেন। শীতলকুচিকাণ্ড নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ফাঁস হয়ে যাওয়া অডিও টেপ নিয়েও মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ করেন প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রীর অভিযোগ, মৃত্যু নিয়ে রাজনীতি করছেন মুখ্যমন্ত্রী।