জামাই আদর পেতে চাইছেন পরিযায়ী শ্রমিকরা, বিতর্কিত মন্তব্য সাংসদ শতাব্দীর

এতদিন চুপচাপ থাকলেও ফের বেফাঁস মন্তব্য করে বসলেন অভিনেত্রী সাংসদ শতাব্দী রায়, পরিযায়ী শ্রমিকদের ঘরে ফেরা প্রসঙ্গে বিতর্কিত মন্তব্য করে বসেন বীরভূমের সাংসদ। তিনি পরিযায়ী শ্রমিকদের উদ্দেশ্যে এমন কথা বলেন যে শুনে অবাক সকলেই।তিনি পরিযায়ী শ্রমিকদের বাড়ি ফেরা প্রসঙ্গে বলেন, পরিযায়ী শ্রমিকরা জামাই আদর কেন চাইছেন, তা কোনো ভাবে দেওয়া সম্ভব না।

এই মন্তব্য ঘিরে শুরু হয়েছে জল্পনা, একদিকে যখন কাজ নেই, হাতে টাকা নেই, তখন পরিযায়ী শ্রমিকরা বাড়ি ফিরতে মরিয়া হয়ে উঠছেন, বিভিন্ন রাজ্য তাদের ফিরিয়ে আনতে বিভিন্ন ব্যবস্থা নিয়েছে, সেই সময় এই মন্তব্যে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে পরিযায়ী শ্রমিকদের মধ্যে।

বিভিন্ন জেলায় কোয়ারইন্টিনে থাকা পরিযায়ী শ্রমিকরা খাবারের মান, পর্যাপ্ত পরিষেবা না পেয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে, এই নিয়ে বিভিন্ন প্রশ্ন উঠেছে বিভিন্ন মহলে, এরই মাঝে বিতর্কিত মন্তব্য করে বসেছেন শতাব্দী রায়, যাতে শাসক দল তৃণমূলের অন্দরে তীব্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।

বীরভূমের সাইথিয়াতে সাংসদ শতাব্দীর সাথে জেলার বিভিন্ন আধিকারিকদের মিটিং হয়, সেখানেই নানা অভিযোগ ওঠে, সেখানেই তিনি পরিযায়ী শ্রমিকদের জামাই আদরের মতো বিতর্কিত কথা বলেন। তার মুখ দিয়ে একথা বের হতেই বিরোধীরা বিরোধ করেছেন, বিরোধীরা শতাব্দী রায়ের মানসিকতার উপর সন্দেহ প্রকাশ করেছেন, শুরু হয়েছে রাজনৈতিক বিতর্ক। কিছুদিন আগেই সাপের কামড় খেতে হয়েছে কোয়ারইন্টিনে থাকা ব্যক্তিকে, এরই মাঝে এহেন মন্তব্য বেশ অস্বস্থিতে পড়েছে শাসক দল তৃণমূল।