ব্যা’প’ক টু’ই’স্ট, গ’ণ’না’র ২ দিন আগেই নন্দীগ্রামে লো’পা’ট স’ব’কি’ছু!

আর মাত্র কয়েক ঘণ্টার অপেক্ষা। একুশের বিধানসভা নির্বাচনের ফল প্রকাশের কাউন্টডাউন শুরু হয়ে গিয়েছে। আগামী রবিবার দিনভর সাধারণের নজর থাকবে ভোটের খবরে। এই দফায় কার্যত বিজেপি এবং তৃণমূলের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই বেঁধেছে। রাজ্যের মসনদ দখলের লড়াইয়ে কারা এগিয়ে থাকবে, তা জানতে উৎসুক রাজ্যবাসী।

একুশের বিধানসভা নির্বাচনের সবথেকে হাই ভোল্টেজ কেন্দ্র বলা যেতে পারে নন্দীগ্রামকে। কারণ এই নন্দীগ্রামেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং এককালীন তার সর্বাধিক কাছের দলীয় সদস্য তথা বর্তমান বিজেপির হেভিওয়েট নেতা শুভেন্দু অধিকারী একে অপরের প্রতিপক্ষ হিসেবে দাঁড়িয়েছেন। একুশের ভাগ্য গণনায় কে হবেন জয়ী? তা জানার জন্য উৎসুক রাজ্যবাসী।

তবে ভোটের ফল প্রকাশের ঠিক ৪৮ ঘন্টার মাথাতেই নন্দীগ্রামে ঘটে গেল অনভিপ্রেত ঘটনা। নন্দীগ্রামের ২ নম্বর ব্লক আমদাবাদের এক নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েত অফিস থেকে খোয়া গেল জরুরী ফাইল। শুধু তাই নয় কম্পিউটারের হার্ডডিক্সও চুরি করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার গভীর রাতে।

এই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে রাজনৈতিক তরজা শুরু হয়ে গিয়েছে। বিজেপির অভিযোগ, তৃণমূল শাসক দলের দলীয় কর্মীরাই এই ঘটনার সাথে জড়িত। অবশ্য স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব বিজেপির এমন অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন। তাদের পাল্টা দাবি, তৃণমূলের এই সরকারি নথিপত্র চুরি করার কোনো প্রয়োজনীয়তা নেই। ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাজনীতির পারদ চড়ছে।