বিশ্ব জুড়ে ব্যাপক জলবায়ু পরিবর্তন, মাত্র কয়েক বছরের মধ্যেই বিলুপ্ত হবে এই প্রাণী!

পৃথিবীর বিশ্ব উষ্ণায়নের বেড়ে যাচ্ছে ভালো বায়ুতে নানা পরিবর্তন যার ফলে কিছু বছর পরেই দেখা দিতে পারে বেশ কিছু পরিবর্তন। ক্রমে পৃথিবীর বিশ্ব উষ্ণায়ন বেড়ে যাচ্ছে যার ফলে পৃথিবীর আবহাওয়াতেও দেখা দিচ্ছে নানান পরিবর্তন। মাঝে মাঝেই আমরা নানান রকমের প্রাকৃতিক দুর্যোগের সম্মুখীন হচ্ছে। কিছু বছর পর পৃথিবীর অবস্থা কি রকম হতে চলেছে সেটা সম্পর্কে বিজ্ঞানীরা বারবারই গোটা বিশ্ববাসীকে বুঝিয়ে চলেছে। বিশ্ব উষ্ণায়নের ফলে যে সমস্যা গুলি তৈরি হচ্ছে তা অনেকেই মানতে রাজি নন তাদের মতে বিষ্ণ উষ্ণায়নের ফলে যেরকম সমস্যাগুলি হতে পারে সেগুলোর প্রভাব এখনো পর্যন্ত বিশেষভাবে পৃথিবীর ওপর পড়ে নি।

কিন্তু গোটা বিশ্বে সমীক্ষা বলছে কিছু আলাদা কথাই। উষ্ণায়নের প্রভাব ক্রমশ বেড়েই চলেছে তার প্রতিক্রিয়া দেখা যাচ্ছে স্টারফিশ দের ওপর। গবেষকদের মতে বিষ্ণ উষ্ণায়নের ফলে যে আবহাওয়া পরিবর্তন হচ্ছে তার জন্য স্টারফিশ দের একটি রোগ হচ্ছে যেটা হলো সি স্টার ওয়েস্টিং ডিসিস। এই রোগটির ফলে স্টারফিশ দের শ্বাস-প্রশ্বাসের সমস্যা হচ্ছে কারণ আবহাওয়া পরিবর্তনের ফলে উষ্ণতা বেড়ে যাচ্ছে এবং যার জন্য এই রোগে মারা যাচ্ছে অসংখ্য স্টারফিশ।

বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছে যে, কয়েক বছরের মধ্যেই স্টারফিশ সংখ্যা একেবারেই কমে যাবে এবং বিলুপ্ত প্রাণী তে পরিণত হবে তারা। কিভাবে এই আবহাওয়া পরিবর্তনের ফলে সিস্টার ওয়েস্টিং ডিজিজ রোগটি স্টারফিস দের উপর প্রভাব ফেলেছে, সে বিষয়ে বলেন কর্নেল ইউনিভার্সিটির মাইক্রো বায়োলজিক্যালের এক অধ্যাপক।

তিনি এ পুরো ব্যাপারটিকে ব্যাখ্যা করে বলেন যে, সামুদ্রিক প্রাণীদের শরীরের মধ্যে থাকে পাপুলে নামের একটি জিনিস এবং যেটা চামড়ার উপরে অবস্থান করে। এই জিনিসটির কারণেই স্টারফিশ অক্সিজেন শোষণ করতে পারে এবং যার জন্যই জলের মধ্যে থেকেও শ্বাস-প্রশ্বাস নিতে পারে তারা। কিন্তু তাপমাত্রা বেড়ে যাওয়ার কারণে সমুদ্রের মধ্যে মাইক্রোবাস অ্যাক্টিভিটি অত্যাধিক বেড়ে যায় এবং যার জন্য এই রোগটি তাদের ওপর বিশেষ ভাবে প্রভাব ফেলছে। এই রোগের কারণে স্টার ফিশের গায়ের রং উধাও হয়ে যাচ্ছে এবং তাদের চামড়া গুলি কুঁচকে যায়। এই রোগটি প্রায় সাত বছর ধরে দেখা যাচ্ছে। শুধু স্টারফিশ নয় সমুদ্রের অনেক প্রাণীদের মধ্যে এই রোগটি দেখা গেছে।