৭৮ বছরের বৃদ্ধর সাথে ১৭ বছর বয়সী কিশোরীর বিয়ে, ২২ দিনের মাথায় সংসারে ভাঙ্গন

ইন্দোনেশিয়া এক ঘটনা,১৭ বছরের মেয়েকে বিয়ে করল ৭৮ বছরের এক বৃদ্ধ। কথায় আছে না প্রেমে পড়লে তো বয়স্করা হয়ে যায় তরুণ। এখানে এসেই ব্যাপারটা ঠিক এরকমই ১৭ বছরের একটি মেয়ের প্রেমে পড়ে বিয়ের বাঁধনে তাকে বাঁধলেন ৭৮ বছরের এক বৃদ্ধ। তবে এই বিয়ে বেশি দিন টেকেনি। মাত্র ২২ দিনের মাথায় বিয়ে ভেঙে গেল তাদের। ৭৮ বছরের এক বৃদ্ধা ১৭ বছরের ননির প্রেমে পড়েছিল। এবং ঘটনাক্রমে দুজনার পরিবারের সাথে কথা বলেই দুজনের বিয়ে দেওয়া হয় পরিবার থেকে।

এরকম হতে হতে পারে এটা ভাবলেই অনেকের মাথা ঘুরে যাওয়ার মত অবস্থা হয়। ১৭ বছরের মেয়ে ননির পরিবার থেকে জানা যায় যে, বিয়ের পরে দম্পতি বেশ ভালই ছিল। সংসার করছিল বেশ ভালোমতোই। দুজনাই দুজনার প্রেমে হাবুডুবু খাওয়ার মতই অবস্থা।

কিন্তু তারপরও এরকম কিছু ঘটে যাবে বলে দুই পরিবারের কেউই ভাবতে পারেনি। হঠাৎই বিবাহ-বিচ্ছেদের কাগজপত্র পৌঁছে যায় ননীর হাতে। তার স্বামী তাকে এই কাগজ পাঠিয়েছে। প্রথমদিকে ননি এটি বিশ্বাসই করতে পারেনি যে, তার স্বামী এরকম কাজ করতে পারে। ননির পরিবার থেকে খবর পাওয়া যায় যে, যখন এই বিবাহবিচ্ছেদের কাগজ ননির হাতে পড়ে তখন থেকে ননি ভীষণ কাঁদতে শুরু করে এবং খাওয়া দাওয়া পর্যন্ত বন্ধ করে দেয়।

যে বৃদ্ধ ১৭ বছরের মেয়ে ননির প্রেমে হাবুডুবু খাচ্ছিল সে এরকম সিদ্ধান্ত হঠাৎ করে নেওয়ার কারণ কি ছিল সে বিষয়ে অনেকেরই প্রশ্ন উঠেছিল, এবং তার পরে তার স্বামীর পক্ষ থেকে জানা যায় যে, ননি নাকি বিয়ে হওয়ার আগে থেকেই অন্তঃসত্ত্বা ছিল, এই কথাটি তার স্বামী জানতেন না এবং জানার পর থেকে স্ত্রী হিসাবে আর মানতে রাজি ছিলেন না ননিকে এবং বিয়ে ভাঙার জন্য তিনি বিবাহবিচ্ছেদের কাগজপত্র ননির কাছে পাঠিয়েছিলেন। তবে পরিবার সূত্রে খবর পাওয়া যায় যে ননির অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার খবর নিছোকি জল্পনা এটার কোনো সত্যতা নেই।