না’য়ি’কা’দে’র কে’রি’য়া’র শেষ ক’রে দে’য় বিয়ে ও মাতৃত্ব: অমৃতা রাও

২০০২ সালে অভিনেত্রী অমৃতার প্রথম ছবি ‘অব কে বরস’ মুক্তি পেয়েছিল ৷ তাঁর ফিল্মোগ্রাফিতে উল্লেখযোগ্য ছবি হল ‘দ্য লেজেন্ড অব ভগৎ সিং’, ‘ইশক ভিশক’, ‘মস্তি’, ‘ম্যায়ঁ হুঁ না’, ‘বিবাহ’, ‘হে বেবি’, ‘ওয়েলকাম টু সজ্জনপুর’ এবং ‘জলি এলএলবি’৷২০১৬ সালে অমৃতা বিয়ে করেন তাঁর বহু দিনের প্রেমিক রেডিয়ো জকি আনমোল সুদকে ৷ গত বছর জন্ম হয়েছে তাঁদের সন্তান বীরের ৷

অভিনেত্রীকে অমৃতাকে শেষ বার ছবিতে দেখা গিয়েছে, ২০১৯ সালে, ‘ঠাকরে’ ছবিতে ৷ আরবসাগরের তীরে তাঁর নিজের প্রত্যাশামতো জায়গা না পাওয়ার জন্য অবশ্য অমৃতা সরাসরি বিয়েকে দায়ী করেননি ৷

তবে বলিউডে তাঁর সূত্রপাত ছিল সাড়া জাগানো ৷ দ্রুত জায়গা করে নিয়েছিলেন জনপ্রিয়তার সারিতে ৷ কিন্তু উত্থানের মতোই আচমকা ও দ্রুত ছিল অমৃতা রাওয়ের ইন্ডাস্ট্রি থেকে হারিয়ে যাওয়া ৷ তাঁর মতো অনেক নায়িকার কেরিয়ার থেমে যায় সময়ের আগেই ৷ সম্প্রতি সে বিষয়েই কথা বলেছেন তিনি ৷

একটি সংবাদ মাধ্যমকে সাক্ষাৎকারে তিনি জানান, নায়িকাদের কেরিয়ার অকালে ফুরিয়ে যাওয়ার জন্য দায়ী তাঁদের বিয়ে এবং মাতৃত্ব ৷ তাঁর কথায়, “এক জন নায়ক দুই সন্তানের বাবা হওয়ার পরেও পর্দায় দিব্যি তাঁর হাঁটুর বয়সি নায়িকাদের সঙ্গে প্রেম করতে পারেন ৷ নায়িকারা তা পারেন না ৷”

তিনি আরও জানান,”মেয়েরা সব সময় ভয়ে ভয়ে থাকেন ৷ তাঁদের ভাবতে হয়, পারিপার্শ্বিকের পরিবর্তন নিয়ে৷বিয়ের পরে নায়কদের জীবন পাল্টায় না৷কিন্তু নায়িকাদের পাল্টায় ৷’’