দত্তক নেওয়া মেয়েকে নিয়ে কু’ম’ন্ত’ব্য নেটিজেনদের, যোগ্য জবাব দিলেন মন্দিরা বেদী

দত্তক নেওয়া খুব একটা সাধারণ ব্যাপার নয়। আমরা অনেকেই আমাদের সন্তানকে মানুষ করতে গিয়ে ধৈর্য হারিয়ে ফেলি। সেই জায়গায় দাঁড়িয়ে দত্তক নেওয়া কন্যা অথবা সন্তানকে মানুষ করা রীতিমতো বিশাল ধৈর্যের ব্যাপার। অনেক বড় মন থাকলে তবেই এই কাজ করা যায়। আমাদের চলচ্চিত্র জগতের সব থেকে আগে এই তালিকায় নাম রয়েছে সুস্মিতা সেন সানি লিওনি এবং অবশ্যই মন্দিরা বেদি। মন্দিরা বেদি বলিউডের একজন জনপ্রিয় অভিনেত্রী।

অভিনয় করার পাশাপাশি তিনি ক্রিকেট দুনিয়ার সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে যুক্ত। সেই ভাবে শীর্ষ চরিত্রে অভিনয় না করলেও মাঝে মাঝে তাকে দেখা যায় পার্শ্বচরিত্রে অভিনয় করতে। শরীরচর্চা করার জন্য মাঝে মাঝে তাকে দেখা যায় সোশ্যাল মিডিয়াতে। কিছুদিন আগেই মৌনি রায়ের সঙ্গে তিনি ঘুরতে গিয়েছিলেন মালদ্বীপ।

ক্যারিয়ারের প্রথম মন্দিরা বেদি বিয়ে করেছিলেন রাজ কৌশলকে। তার স্বামী পেশায় একজন পরিচালক এবং প্রযোজক। বিয়ের ১২ বছর পর জন্ম হয় তাদের প্রথম সন্তানের। ভালোবেসে তাদের নাম রাখেন বীর। তবে কোথাও না কোথাও অভিনেত্রীর মনে হয়েছিল যে, তার একটি কন্যা সন্তানের প্রয়োজন। কন্যা সন্তান পেলে তাদের পরিবার পরিপূর্ণ হবে। অন্যদিকে তার সন্তানও খেলার সঙ্গী পাবে।

কিন্তু দ্বিতীয় সন্তানের কথা তারা ভেবেছিলেন একটু অন্যরকম ভাবে। মন্দিরা সেন্ট্রাল এডুকেশন রিসোর্স অথরিটিতে কন্যা সন্তানের জন্য আবেদন জানান। প্রায় দুই বছরেরও বেশি অপেক্ষা করে অবশেষে তারা পান চার বছর বয়সী একটি কন্যাসন্তান কে। তার নাম রেখেছেন তারা। মন্দিরা বেদি পরিবার এখন একটি সুখী পরিবারে পরিণত হয়েছে।

তবে সাধারণ মানুষ মাঝে মাঝেই তারা কে নিয়ে কটূক্তি করেন। অনেক সময় কুরুচিকর মন্তব্য শুনতে পাওয়া যায় দত্তক নেওয়া সন্তানটিকে নিয়ে। সম্প্রতি একজন বলেছিলেন যে, কোন বস্তি থেকে এই মেয়েটিকে তুলে এনেছেন? কেউ কেউ আবার লিখেছেন, রাস্তার মেয়েকে এখানে একেবারেই মানাচ্ছে না।

অবশেষে এই সমস্ত কুরুচিকর মন্তব্যের প্রতিবাদে কথা বলতে শোনা গেল মন্দিরা বেদি কে। প্রথম নেট নাগরিকের বক্তব্যের উদ্দেশ্যে তিনি বলেছেন যে, এই ধরনের মানসিকতার মানুষদের বিশেষ উল্লেখ প্রয়োজন। দ্বিতীয় ব্যক্তির উদ্দেশ্যে মন্দিরা বেদি লিখেছেন, এই মানুষটি নিজেকে রাজেশ ত্রিপাঠী বলে পরিচয় দিচ্ছেন। কিন্তু আমার মনে হয় এটি এর আসল নাম নয়। এরকম অসুস্থ মানসিকতার মানুষেরা ভীতু হয়। নিজেদের নাম প্রকাশ করতে ভয় পায়। আমার মতে মানুষের কোন জাত পাত হয় না। মানুষ আদতে একজন মানুষই।