শান্তিপূর্ণ ভোট চাইছেন না মমতা, সিআরপিএফ ইস্যুতে জবাব দিলেন অমিত শাহ

একুশের বিধানসভা নির্বাচন উপলক্ষে রাজ্য রাজনীতি সরগরম। এই দফার নির্বাচনে বিজেপির হয়ে প্রচারকার্য চালানোর উদ্দেশ্যে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বরা বারংবার বাংলায় আসছেন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা এমনকি উত্তরপ্রদেশ থেকে যোগী আদিত্যনাথও বাংলায় বিজেপির ভোট বৈতরণী পার করানোর উদ্দেশ্যে বাংলায় আসছেন।

একুশের লড়াইয়ে বিজেপির প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী তৃণমূল। তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ইতিমধ্যেই কেন্দ্রীয় বাহিনী প্রসঙ্গে একাধিকবার বিজেপির বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন। তার অভিযোগ, কেন্দ্রীয় বাহিনী বিজেপির হয়ে কাজ করছে। এ প্রসঙ্গে প্রয়োজনে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে ঘেরাও করার কথাও বলেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো। তার এমন বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের পাল্টা বক্তব্য, দিদি হতাশা থেকেই এমন কথা বলছেন।

বিজেপির হয়ে নির্বাচনী প্রচার সভায় অংশগ্রহণ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বলেন, বিজেপির সমীক্ষা বলছে প্রথম তিনটি দফার ৯১টি আসনের মধ্যে ইতিমধ্যেই ৬৩-৬৮টি আসন জিতে নিয়েছে বিজেপি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তা বুঝেই হতাশা থেকে এমন মন্তব্য করছেন। এ প্রসঙ্গে তিনি তৃণমূল সুপ্রিমোকে মনে করিয়ে দিয়েছেন, নির্বাচনের সময় কেন্দ্রীয় বাহিনী নির্বাচন কমিশনের তত্ত্বাবধানে থাকে। তা দিদির মনে রাখা উচিত।

অমিত শাহ বলেছেন, নির্বাচনের সময় কেন্দ্রীয় বাহিনীর উপর কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের কোনো হাত থাকে না। কেন্দ্রীয় বাহিনী নির্বাচন কমিশনের কথা মতোই কাজ করে। তা জেনেও যদি তৃণমূল সুপ্রিমো এমন মন্তব্য করে থাকেন তাহলে ধরে নিতে হবে তিনি চরম হতাশা থেকে এমন মন্তব্য করছেন।