তৃতীয়বারের জন্য মমতা ব্যানার্জি-ই হবেন মুখ্যমন্ত্রী, মন্তব্য করলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়

সামনে একুশে বিধানসভা নির্বাচন আর সেটাকে মাথায় রেখেই তৃণমূল এখন দারুন ভাবে প্রস্তুতি নিচ্ছে। দফায় দফায় বিভিন্ন জায়গায় বৈঠক করে চলেছে এ শাসক দল।তবে তৃণমূলের শিবিরে মাঝেমধ্যেই ভাঙ্গনের খবর শোনা গেলেও তৃণমূল এখনও নিজেদের ওপর আত্মবিশ্বাসী। তৃতীয়বারের জন্য বাংলার মুখ্যমন্ত্রী হবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়,মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে হারানোর জন্য এখনো কোন শক্তির জন্ম হয়নি।এমনটাই হুংকার দিলেন তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়।আজ বৃহস্পতিবার ঝাড়গ্রামে একটি সভায় দিয়ে এমনটাই মন্তব্য করল পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

এখানেই শেষ নয় তিনি সেখানে দাঁড়িয়ে সমস্ত আদিবাসী কে একজন হওয়ার বার্তা দিয়েছেন, তিনি জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রয়েছে সর্বত্র তাদের পাশে তাদের সাথে।তাই বিজেপি যতই সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচার করুক না কেন এই ঝাড়গ্রামে তারা পাবে শূন্য। যদি দেখা যায় বিজেপির জন্য বাংলায় সবথেকে বড় শক্তি ঘাঁটি ঝাড়গ্রাম। এই ঝাড়গ্রামে তারা দারুন ফল করেছে। তারা সেখানকার অধিবাসীদের একজোট করে তাদের পক্ষে সমর্থন করাতে পেরেছে। আর এই ঝাড়গ্রামে দাঁড়িয়ে আজ তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় বিজেপির বিরুদ্ধে নজিরবিহীনভাবে আক্রমণ শাণালেন। তবে এখানেই শেষ নয় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় গঙ্গারামপুরের এক সভা থেকে দারুণভাবে আক্রমণ করেন বিজেপিকে। তিনি কটাক্ষ করে বিজেপিকে বলেন ফের নবান্নে ফিরছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় একেবারে বিজেপি নেতাদের কটাক্ষ করে বলেন, যতই নর কলকাঠি আগামী বছর নবান্নে সেই হাওয়াই চটি। তিনি বলেন ২০১৯ এর পর থেকে বিজেপির কোন বড় নেতাদের দেখা যায়নি বাংলায়। কিন্তু দিনের পর দিন মানুষের পাশে থেকে সেবা করেছে তৃণমূল নেতাকর্মীরা। এতে স্পষ্ট যে মানুষের দোয়া আশীর্বাদ সর্বদা রয়েছে তৃণমূলের সাথে। তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীত্ব না করে বলেন, এখন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কি জীবন-যাপন করেন তাহলে ঘরে থাকেন তার সেই পুরনো গাড়িতে চড়েন। কিন্তু নরেন্দ্র মোদি থাকেন ছাদওয়ালা বাড়িতে ৬ কোটি টাকার গাড়িতে চড়েন। অর্থনৈতিক দিক থেকে দেশের অবস্থা খুবই খারাপ জিডিপি নেমে যাচ্ছে তলানীতে, নোট বন্দি জিএসটি কারণে ব্যাংকে লাইন, এই লাইন কেবল ভয়ের। কিন্তু দুয়ারে দুয়ারে সরকার কেবলমাত্র নম্রতার।