পুনর্গণনার দা’বি তু’ল’লে’ন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, কো’র্টেও যে’তে পা’রে’ন

দলের অন্যান্য নেতারা জিতে গেলেও নন্দীগ্রামে স্বয়ং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় গেলেন হেরে। সকালে প্রথম দফার ভোট গণনায় আমরা জানতে পেরেছিলাম যে নন্দীগ্রামে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জয় যুক্ত হয়েছেন। কিন্তু মাঝে কিছুক্ষণের বিরতির পর যখন আরো একবার ভোট গণনা করা হয় তখন জানতে পারা যায় যে বিপুল ভোটে এগিয়ে যায় শুভেন্দু অধিকারী।

শুভেন্দু অধিকারীর কাছে হারের পর নন্দীগ্রামের পুনর্গণনার দাবি জানান পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই প্রসঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান যে, সারাবাংলাতে একরকম রায় হলো, নন্দীগ্রামের আরেকরকম রায় হলো এটা কখনো হতে পারে না।

নির্বাচন কমিশন ভয়াবহ পক্ষপাত দুষ্ট আচরণ করেছে আমাদের সাথে। ইলেকশন জেতা অ্যানাউন্সমেন্ট এরপর নিশ্চয়ই কিছু কারচুপি করা হয়েছে। না হলে এই ভাবে যে তারা চামড়া হেরে যেতে পারি না। তাদের খুঁজে বার করে কোর্টে নিয়ে যেতে হবে। নন্দীগ্রামে এখনো ভোট গণনার কাজ চলছে। আগামী সময়ে কি ফলাফল হবে তা দেখার জন্য অপেক্ষা করে রয়েছেন সমস্ত দেশবাসী।